২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯, ২ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

ডাকাতের আতঙ্ক, ৯৯৯-এ ফোন করে রক্ষা পেলেন ঢাবির ১০ শিক্ষার্থী


কিশোরগঞ্জের হাওরে নৌকা নিয়ে ঘুরতে গিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে আটকা পড়েন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ জন সহ মোট ১২ শিক্ষার্থী। পরে ডাকাতের হামলার আশঙ্কায় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে রক্ষা পেয়েছেন তারা।

কিশোরগঞ্জের মিঠামইন উপজেলার গোপদিঘী ইউনিয়নের ডুবি এলাকা থেকে চামড়া নৌপুলিশ তাদের উদ্ধার করে নিরাপদে গন্তব্যে পাঠায়।

উদ্ধারকৃতদের মধ্যে ১০ জন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এবং দু’জন গুরুদয়াল সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী বলে জানা গেছে।

চামড়াঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক মোঃ এনামুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরের পর ১৪ জন শিক্ষার্থী হাওরের অলওয়েদার সড়কে ঘুরতে যান। তারা করিমগঞ্জ উপজেলার বালিখলা থেকে একটি ট্রলার ভাড়া করে মিঠামইনে নেমে অলওয়েদার সড়কে ঘোরাঘুরি করেন। সন্ধ্যার পর সেখান থেকে ফেরার পথে ঢেউয়ের কবলে পড়েন। রাতে মিঠামইন উপজেলার হাসনপুর সেতুর কাছে তাদের বহনকরী ট্রলারটি কম পানিতে আটকা পড়ে। এ সময় ভয়ে তারা চিৎকার শুরু করলেও কোনো সহযোগিতা পাচ্ছিলেন না।

নৌকায় কয়েকজন নারী শিক্ষার্থীও ছিলেন। এক পর্যায়ে আতঙ্কে দুই শিক্ষার্থী নৌকা থেকে পানিতে লাফিয়ে পড়েন। আশপাশে টর্চলাইট জ্বালাতে দেখে ডাকাতের হামলার আশঙ্কা করেন তারা। এ সময় এক শিক্ষার্থী ৯৯৯-এ কল করে তাদের উদ্ধারে পুলিশের কাছে সাহায্য চান। বিষয়টি জানানো হয় করিমগঞ্জের চামড়াঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়িকে।

এসআই মোহাম্মদ এনামুল হক আরো জানান, খবর পেয়ে তার নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল প্রায় এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে রাত ১২টার দিকে শিক্ষার্থীদের নৌকাটির অবস্থান জানতে পারে। রাত ১টার দিকে তাদের উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ জেলা সদরে পৌঁছে দেয়া হয়।

তিনি জানান, শিক্ষার্থীরা পুলিশকে বলেছে তারা ডাকাত দলের হামলার আতঙ্কে ছিল। তবে তাদের নৌকায় কোনো হামলা হয়নি।

তবে এ বিষয়ে শিক্ষার্থীদের কেউ বিস্তারিত জানাতে রাজি হননি।


আরো সংবাদ


premium cement