২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯, ৩০ সফর ১৪৪৪ হিজরি
`

সালিশে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে ২ যুবক আহত

সালিশে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে ২ যুবক আহত - ছবি : প্রতীকী

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে সালিশ চলাকালে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে দুই যুবক আহত হয়েছে। এ ঘটনায় বিকেলে আহতদের মামা মো: ওয়াহিদ মিয়া সোনারগাঁও থানায় একটি অভিযোগ করেছেন।

সোমবার বেলা ১২টার দিকে বারদি ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার বারদি ইউনিয়নের ফুলদি গ্রামের মো: ওয়াহিদ মিয়ার সাথে পাশের আলগীরচর গ্রামের মো: ইকবালের দীর্ঘ দিন ধরে ব্যবসায়িক লেনদেন নিয়ে বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে ওয়াহিদ মিয়া বারদি ইউনিয়ন পরিষদে বিচার দাবি করেন। সোমবার উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে সালিশ শুরু হয়। সালিশ চলাকালে ইকবালের সাথে পাওনাদার মো: ওয়াহিদ তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে ইকবালের নেতৃত্বে হারুন অর রশিদ, কবির হোসেন, সাইদুল, মুছা, হানিফাসহ ১০ থেকে ১২জনের একটি দল ওয়াহিদের ভাগিনা মাসুম ও সালাউদ্দিনকে ইউনিয়ন পরিষদের সামনে পেয়ে ছুরিকাঘাত ও পিটিয়ে আহত করে।

অভিযোগের বিষয়ে বাদি ওয়াহিদ মিয়া বলেন, ইকবালের সাথে তার ডিমের ব্যবসা ছিল। ব্যবসায়িক হিসাব-নিকাশ শেষে তার কাছে আমার কাছে আড়াই লাখ টাকা পাওনা ছিল। ইতোমধ্যে এক লাখ টাকা পরিশোধ ও বাকিটাকা পর্যায়ক্রমে দেয়ার করার কথা জানান তিনি। এরপরেও ইকবাল আদালতে মামলা করেন। এতে অতিষ্ঠ হয়ে ইউনিয়ন পরিষদে বিচার দাবি করেন। সালিশ চলাকালে বাইরে ওয়াহিদ মিয়ার ভাগিনাদের পেয়ে ইকবাল তাদের ছুরিকাঘাত ও পিটিয়ে আহত করেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইকবাল নিজেকে হামলার সাথে জড়িত না বলে দাবি করেন। তার লোকজন উত্তেজিত হয়ে ঘটনা ঘটাতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এ বিষয়ে বারদি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান বাবুল বলেন, সালিশ শুরু হওয়ার আগে বাইরে হামলার ঘটনা ঘটে।

সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান জানান, অভিযোগ নেয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 


আরো সংবাদ


premium cement