১৩ আগস্ট ২০২২
`

৫ টাকার কয়েন হাতে দিয়ে শিশুকে একাধিকবার ধর্ষণ

অভিযুক্ত মো: দেলোয়ার হোসেন কুমকুম মিয়া। - ছবি : নয়া দিগন্ত

ফরিদপুরের সালথার গট্টি ইউনিয়নে পাঁচ টাকার কয়েন হাতে ধরিয়ে দিয়ে এক শিশুকে (৭) একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে মো: দেলোয়ার হোসেন কুমকুম মিয়া (৫০) নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

শনিবার অভিযুক্ত ধর্ষককে আটক করেছে পুলিশ।

অভিযুক্ত ধর্ষক গট্টি ইউনিয়নের সিহংপ্রতাব পশ্চিমপাড়ার মৃত জুলফিকার আলী মিয়ার ছেলে। অভিযুক্ত দেলোয়ারের স্ত্রী ও দুই ছেলে রয়েছে। তারা সবাই ঢাকায় থাকেন বলে জানা গেছে।

শিশুটির পরিবার ও স্থানীয়রা জানান, শিশুটি স্থানীয় একটি মাদরাসায় পড়াশোনা করে। মাদরাসায় যাওয়া-আসার সময় দেলোয়ার শিশুটির হাতে পাঁচ টাকার কয়েন হাতে ধরিয়ে দিয়ে বাড়ির পাশে একটি গরুর ফার্মে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন। কয়েক দিন একাধিকবার ধর্ষণ করা হয় বলে শিশুটি নিজে সাংবাদিকদের কাছে বলেছে। বিষয়টি স্থানীয়রা টের পেলে শুক্রবার রাতে অভিযুক্ত দেলোয়ারকে মারধর করে ছেড়ে দেন।

পরে স্থানীয় মাতুব্বর ঘটনাটি মিমাংসা করে দিতে চাইলে তাতে প্রথমে রাজি না হওয়ায় শিশুটির মায়ের গলায় ছুরি ঠেকিয়ে ধরে ধর্ষকের সমর্থকরা। ভয়ে মিমাংসার বিষয়টি মেনে নিতে বাধ্য হন শিশুটির পরিবার। খবরটি স্থানীয় সংবাদকর্মীরা জানতে পেয়ে পুলিশকে অবগত করেন।

পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুর বক্তব্য শুনে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ধর্ষককে আটক করে।

সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: শেখ সাদিক বলেন, শিশু ধর্ষণের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত দেলোয়ারকে আটক করা হয়েছে। পাশাপাশি ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশি হেফাজতে পরীক্ষা করার জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো মামলা করা হয়নি। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।


আরো সংবাদ


premium cement