১৯ মে ২০২২, ০৫ জৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩
`

ফরিদপুরে অপারেশনে মলদ্বারের নাড়ি কাটায় হাসপাতালের ২ পরিচালকের কারাদণ্ড

ফরিদপুরে অপারেশনে মলদ্বারের নাড়ি কাটায় হাসপাতালের ২ পরিচালকের কারাদণ্ড - ছবি : নয়া দিগন্ত

ফরিদপুরে এক গৃহবধূকে প্রাইভেট ক্লিনিকে ভাগিয়ে নিয়ে এপেন্ডিক্স অপারেশনের সময় মলদ্বারের নাড়ি কেটে ফেলার ঘটনায় শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ডের পাশে অবস্থিত পিয়ারলেস হাসপাতালের দুই পরিচালককে সাত দিনের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার রাত ৮টার দিকে ফরিদপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম ইমরাজিন টুনুর নেতৃত্বে পরিচালিত আদালত এ কারাদণ্ড দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- পিয়ারলেস হাসপাতালের পরিচালক মিঠুন চন্দ্র সরকার ও আসাদুজ্জামান আসাদ।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. ছিদ্দীকুর রহমান অভিযানকালে উপস্থিত ছিলেন। এ সময় তিনি বলেন, হাসপাতালটির বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়ে এ অভিযান চালানো হয়। তারা ১০ শয্যার অনুমতি নিয়ে আরো বেশি শয্যা বসিয়ে কার্যক্রম চালাচ্ছিলেন। এছাড়া তাদের কোনো নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসক নেই। অনকল ডাক্তার দিয়ে তারা কাজ চালাচ্ছেন। ১২ জন নার্সের স্থলে মাত্র একজন নার্স রয়েছেন। প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতিও নেই। তাদের এক মাসের সময় দিয়ে এসব শর্ত পূরণ করতে বলা হয়েছে, অন্যথায় হাসপাতালটি বন্ধ করে দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, ফরিদপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ (বিএসএমএমসি) হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা এক গৃহবধূকে প্রাইভেট ক্লিনিকে ভাগিয়ে এই পিয়ারলেস হাসপাতালে তার এপেন্ডিক্স অপারেশনের সময় মলদ্বারের নাড়ি কেটে ফেলা হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের ডা: উৎপল নাগ ওই রোগিকে এখানে এনে অপারেশন করেন বলে হাসনা বেগম নামে ওই রোগির এক স্বজন লিখিত অভিযোগ করেছেন।

পিয়ারলেস হাসপাতাল নিয়ে বুধবার দৈনিক নয়া দিগন্তের তৃতীয় পাতায় একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।


আরো সংবাদ


premium cement