২২ মে ২০২২
`

দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে তীব্র যানজট


দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌ-রুটে ফেরি ও ঘাট সঙ্কটের কারণে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে দেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকার যাত্রীদের।

মঙ্গলবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত রাজবাড়ী প্রান্তে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের পদ্মার মোড় পর্যন্ত প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজট দেখা যায়। দৌলতদিয়া প্রান্তে পারাপারের জন্য অপেক্ষা করছে শত শত ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ও বাস।

একইসাথে দৌলতদিয়া ঘাটের ওপর চাপ কমাতে সেখান থেকে ১৪ কিলোমিটার দূরে গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক সড়কটি আটকে রাখা হয়েছে। এতেও বেশ ভোগান্তিতে পড়েছেন ওই এলাকার যাত্রীরা।

বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, দৌলতদিয়ায় সাতটি ফেরি ঘাটের মধ্যে মাত্র চারটি চালু রয়েছে। নাব্যতা সঙ্কট ও অন্যান্য কারণে বন্ধ রয়েছে অন্য তিনটি। আর ফেরি চলাচল করছে ১৫টি। চারটি ফেরি যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে মেরামতে রয়েছে। এখানে স্বাভাবিক যানবাহন পারাপারের জন্য অন্তত ২০ থেকে ২২টি ফেরি সচল থাকা দরকার। এছাড়া শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুট স্বাভাবিক না হওয়ায় সেখানকার বেশিরভাগ যানবাহন এদিক দিয়ে চলাচল করছে। ফলে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটের ওপর চাপ বেড়েছে।

এদিকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা গাড়িতে বসে থেকে তীব্র শীতের মধ্যে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন যাত্রী, চালক ও সহকারীরা।

ট্রাকচালক আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘সোমবার রাত ৩টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলার সামনে এসে দীর্ঘ যানজটে আটকে পড়ি। সেখান থেকে ধীরে ধীরে দুপুর আড়াইটায় বাংলদেশ হ্যাচারিজ পর্যন্ত আসি। কখন ফেরির নাগাল পাব জানি না। এ ঘাটে আরো ফেরি বাড়াতে হবে, তা না হলে এ যানজট কমবে না।’

বিআইডাব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক মো. শিহাব উদ্দিন বলেন, ‘দৌলতদিয়ার সাতটি ফেরিঘাটের মধ্যে ৩, ৪, ৫, ও ৭ নম্বর ঘাট চালু রয়েছে। রুটে ছোট-বড় মিলিয়ে ১৫টি ফেরি চলাচল করছে। বিকল হয়ে আছে চারটি ফেরি। এর মধ্যে তিনটি রো রো (বড়) ফেরি ২ মাসের অধিক সময় ধরে নারায়ণগঞ্জ ডকইয়ার্ডে মেরামতের জন্য রয়েছে।’


আরো সংবাদ


premium cement