২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`

ভোট না দেয়ার অনুদানের কম্বল ফেরত নিলেন পরাজিত প্রার্থী

পরাজিত প্রার্থী রমেছা খানম - ছবি : নয়া দিগন্ত

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে ইউপি নির্বাচনে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ভোট না দেয়ায় অনুদানের কম্বল ফেরত নিয়েছেন এক পরাজিত প্রার্থী।

উপজেলার সহদেবপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য পদে পরাজিত প্রার্থী রমেছা খানমের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার সকালের এ ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। রমেছা খানম এখানকার সাবেক মেম্বার।

জানা যায়, গকাল রোববার অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে সহদেবপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য পদে রমেছা খানম অপর প্রার্থী জোসনা বেগমের কাছে পরাজিত হন। রমেছা খানম প্রায় দু’বছর আগে শীতের সময়ে পরিষদের অনুদানের টাকা থেকে আকুয়া গ্রামের মকবুল হোসেন, অনু মিয়া, সংকু ও বংকুকে একটি করে কম্বল দেন। তিনি যাদের কম্বল দিয়েছিলেন তারা বিজয়ী প্রার্থী জোসনা বেগমের প্রতিবেশী। এজন্য কম্বলপ্রাপ্তরা এবার জোসনা বেগমের পক্ষে কাজ করেন। বিষয়টি ভালো লাগেনি রমেছা খানমের। এ কারণেই রমেছা খানম তাদের কাছ থেকে অনুদানের সেই কম্বলগুলো ফেরত নিয়েছেন।

অনুদানের কম্বল পাওয়া মকবুল হোসেন জানান, প্রায় দুই বছর আগে আমাদের চার ভাইকে চারটি কম্বল দিয়েছিলেন রমেছা খানম। এবার আমার পাশের বাড়ির জোসনা বেগম নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় আমরা তার পক্ষে কাজ করি। এ কারণে রমেছা খানম আমাদের কাছ থেকে সেই কম্বলগুলো নিয়ে নিছেন।

আক্ষেপ করে অনু মিয়া জানান, যে কাজটি রমেছা খানম করলেন তা এলাকাবাসী দেখলেন, গরীবদের প্রতি তার অবিচার আগে থেকেই। এ জন্য তার পক্ষে নির্বাচন করিনি। আর এ কারণেই তিনি সোমবার সকালে এসে অনুদানের দেয়া কম্বলগুলো আমাদের কাছ থেকে ফেরত নিয়ে গেছেন।

এ বিষয়ে রমেছা খানম জানান, ঘটনাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। বিরোধীরা এখন আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছেন।

উল্লেখ্য, গত রোববার টাঙ্গাইলের মধুপুর, নাগরপুর ও কালিহাতী উপজেলার ২৪ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ১৬টিতে আওয়ামী লীগ এবং আটটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। একই দিন ঘাটাইল পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রশিদ মিয়া মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। এখানে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শহীদুজ্জামান খান তৃতীয় হয়েছেন।


আরো সংবাদ


premium cement

সকল