২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`
স্বামীর স্বীকারোক্তি

সতিনের সংসারে অর্থের যোগানে রাজি না হওয়ায় পোশাকশ্রমিক স্ত্রীকে হত্যা

সতিনের সংসারে অর্থের যোগানে রাজি না হওয়ায় পোশাকশ্রমিক স্ত্রীকে হত্যা - ছবি : নয়া দিগন্ত

নিজের কষ্টার্জিত উপার্জন দিয়ে সতিনের সংসারে যোগান দিতে রাজি না হওয়ায় পোশাকশ্রমিক জোনাকিকে হত্যা করে রাজমিস্ত্রী সুজন। হত্যাকাণ্ডের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারের পর পুলিশের কাছে দায় স্বীকার করে ঘটনার বর্ণনা দেয়।

গ্রেফতার সুজনের স্বীকারোক্তির উদ্ধৃতি দিয়ে জিএমপি গাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: ইসমাইল হোসেন জানান, রাজমিস্ত্রী সুজন সংসারের অভাব অনটন গোছাতে একজন কর্মজীবী মেয়েকে বিয়ের পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী স্ত্রী ও সন্তান বা আগের সংসারের তথ্য গোপন রেখে পোশাকশ্রমিক রোজিনা আক্তার ওরফে জোনাকির সাথে প্রথমে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন। জোনাকি গাজীপুর মহানগরের গাছা অঞ্চলের তারগাছ এলাকায় অনন্ত সুয়েটার নামে একটি তৈরি পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। জোনাকির সাথে প্রেমের একপর্যায়ে তারা বিয়ে করেন। বিয়ের পর তারা আলাদা বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন এবং সুজন জোনাকির পুরো বেতনের টাকা নিয়ে যেতেন। এভাবে প্রায় এক বছর সংসার করার পর সুজনের প্রতারণা ফাঁস হয়।

তিনি জানান, জোনাকি জানতে পারেন সুজনের স্ত্রী ও সন্তান আছে। জোনাকির বেতনের টাকা নিয়ে আগের সংসারে ব্যয় করে। এনিয়ে সুজনের সাথে মনোমালিন্যের পর জোনাকি বাবা-মার আশ্রয়ে চলে যান। গত দুই বছর ধরে জোনাকি বাবা-মাকে নিয়ে আলাদা বাসা ভাড়া নিয়ে থাকলেও তিনি সুজনের কাছে জিম্মি ছিলেন। এই জিম্মিদশা থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য তিনি সুজনের সাথে বিবাহ বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেন। এতে সুজন পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে চাকু নিয়ে জোনাকির বাসায় যান। ঘটনার দিন গত শুক্রবার সুজন জোনাকির বাবা-মার সাথে দুপুরের খাবার খেয়ে গল্প করছিলেন। অপেক্ষায় ছিলেন কখন সন্ধ্যা হবে।

একপর্যায়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জোনাকিকে নিয়ে বাড়ির ছাদে যান সুজন। সেখানে গিয়ে তাকে তালাক না দেয়ার জন্য জোনাকিকে বুঝানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু জোনাকি সিদ্ধান্তে অনঢ় থাকায় ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গলায় ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান। ছুরিকাঘাতে কণ্ঠনালী কেটে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে জোনাকির মৃত্যু হয়। পুলিশ এ হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত চাকু ও ঘটনাস্থলে ধস্তাধস্তির সময় ফেলে যাওয়া সুজনের হাতঘড়ি উদ্ধার করেছে। ঘটনার পর গাছা থানা পুলিশ র‌্যাবের সহযোগিতায় আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে সুজনকে নারায়ণগঞ্জ জেলার কাঞ্চন কেন্দুয়া এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। সুজন জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলার মলিকাডাঙ্গা গ্রামের আজগর আলীর ছেলে।


আরো সংবাদ


premium cement
‘ইরান-রাশিয়া-চীন যৌথ নৌমহড়া যুক্তরাষ্ট্রকে কঠোর বার্তা দিয়েছে’ বিধ্বস্ত টোঙ্গায় আর্থিক পরিষেবা চালু, অগ্রাধিকার খাবার পানির টিগ্রায়ে ত্রাণের অভাবে জীবনের ঝুঁকিতে শরণার্থীরা : জাতিসঙ্ঘ শাবি শিক্ষার্থীদের সাথে দুপুরে দ্বিতীয় দফা বৈঠক শিক্ষামন্ত্রীর বাড়ির পেছনে পড়েছিল যুবকের রক্তাক্ত লাশ ঘোড়া দিয়ে হালচাষ নতুন প্রেসিডেন্টের শপথ নেয়ার আগে হন্ডুরাসের কংগ্রেসে হাতাহাতি ফরিদ উদ্দিনের পক্ষে অন্য ভিসি’রা সেনাশাসিত মিয়ানমার ছাড়ছে টোটাল, শেভরন ও শেল পেনসিলভেনিয়ায় বানরবাহী ট্রাক দুর্ঘটনা, পালিয়েছে কয়েকটি ‘ক্ষুধার সম্মুখীন’ আফগানিস্তানের জন্য সাহায্যের হাত বাড়ান : ইমরান খান

সকল