৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

দৌলদিয়ায় ফেরিডুবি : দ্বিতীয় দিনের উদ্ধারকাজ চলছে

দৌলদিয়ায় ফেরিডুবি : দ্বিতীয় দিনের উদ্ধারকাজ চলছে - ছবি : নয়া দিগন্ত

মানিকগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার পাটুরিয়ায় দেশের অন্যতম নৌরুট দৌলদিয়া-পাটুরিয়ার ৫ নম্বর ফেরিঘাটে যানবাহনসহ ডুবে যাওয়া ফেরি শাহ আমানতের ভেতরে আটকা পড়া ট্রাক উদ্ধারে দ্বিতীয় দিনের মতো অভিযান চলছে।

বুধবার সকালে ওই ফেরিটি ডুবি হয়। কিন্তু ফেরি ও ফেরিতে থাকা ট্রাক উদ্ধার শেষ করা যায়নি। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে ফের উদ্ধারকাজ শুরু করেছে উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা। এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ৮টা থেকে পুনরায় উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা এই অভিযান শুরু করে। পরে বিরতি দিয়ে ফের কাজ শুরু করা হয়েছে। এ দিন সকাল ৭টা থেকে উদ্ধারকাজ শুরুর কথা থাকলেও সোয়া ৮টায় উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা দ্বিতীয় দিনের অভিযানে যুক্ত হয় বলে জানিয়েছে ফেরিঘাট সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌবন্দর করপোরেশনের- বিআইডব্লিউটিসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বুধবার রাত পৌনে ১০টার দিকে উদ্ধার অভিযান প্রথম দিনের মতো সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উদ্ধার অভিযানে অংশগ্রহণকারীরা জানিয়েছেন, ফেরির ভেতরে পাঁচটি ট্রাক রয়েছে। এ ছাড়া ডুবে যাওয়া আরো পাঁটি ট্রাক শনাক্ত করা হয়েছে। অবশ্য এই দুর্ঘনায় এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

দুর্ঘটনাকবলিত ফেরি শাহ আমানতকে উদ্ধারের জন্য নারায়ণগঞ্জ থেকে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় বুধবার রাতে পাটুরিয়ায় পৌঁছানোর কথা ছিল। তবে সেটি ৫০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেয়ার পর সন্ধ্যা ঘনিয়ে এলে চাঁদপুরের কাছে আমিরাবাদ পয়েন্টে নোঙর করে। এ কারণে ফেরিটি উদ্ধার নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত ট্রাকের চালক ও মালিকরা অনেকটা দুশ্চিন্তায় পড়েছেন। তবে বৃহস্পতিবার ভোরে ‘প্রত্যয়’ পাটুরিয়ার উদ্দেশে ফের যাত্রা শুরু করে। কিন্তু কখন এটি উদ্ধার অভিযানে যুক্ত হতে পারবে তা নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারছে না।

পাটুরিয়া ফেরিঘাট সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ১৪টি যানবাহনসহ ডুবে যায় ফেরি শাহ আমানত। এরপরই শুরু হয় উদ্ধার অভিযান। দীর্ঘ সাড়ে ১০ ঘণ্টা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে দুর্ঘটনা কবলিত ফেরিটি থেকে চারটি পণ্যবোঝা ট্রাক উদ্ধার করতে সক্ষম হয় হাজমা। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে প্রথম দিনের মতো উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা
করে কর্তৃপক্ষ।

এ দিকে নৌ মন্ত্রণালয় থেকে ফেরিডুবির ঘটনায় বুধবার রাতে এক অফিস আদেশে সাত সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে সাত কার্যদিবসের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। ফেরি দুর্ঘটনার কারণ ও ফেরির মানোন্নয়ন-সংক্রান্ত সুপারিশ সম্পর্কিত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবর দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে ওই আদেশে।

এ ছাড়া বিআইডব্লিউটিসি থেকেপৃথক একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ফেরি দুর্ঘটনার কারণ উদঘাটনে পাঁচ সদস্যের এই তদন্ত টিম গঠন করা হয়।



আরো সংবাদ