২৪ জুলাই ২০২১
`

গাছের ডালে ঝুঁলন্ত প্রেমিকের লাশ, নিচে প্রেমিকার


এক বছর আগে গড়ে উঠেছিল প্রেমের সম্পর্ক। বিষয়টি জেনে যায় উভয় পরিবার। তারা এই সম্পর্ক মানতে নারাজ। পরিবারের সাথে অভিমান করে ঈদুল আজহার আগের দিন মঙ্গলবার নিখোঁজ হন ওই প্রেমিক-প্রেমিকা। বুধবার গাছের ডালে শাড়ি পেঁচানো প্রেমিকের লাশ ঝুঁলতে দেখা যায়। আর প্রেমিকার লাশ মিলল ওই গাছটির নিচেই।

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার কাউলীবেড়া ইউনিয়নের মাইঝাইল গ্রামের দুই তরুণ-তরুণীর এমন মৃত্যু হয়েছে।

বুধবারই উপজেলার কাউলীবেড়া ইউনিয়নের মাইঝাইল গ্রাম থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়।

মৃত দুই তরুণ-তরুণী হলেন- ওই গ্রামের মৃত নিতাই চন্দ্র সিকদারের ছেলে অধীর কুমার সিকদার (২৪)। তিনি এ বছর ভাঙ্গা সরকারি কে এম কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন। আর প্রেমিকা মুন রানী মজুমদার (১৫) একই গ্রামের বাসিন্দা মনোজ কুমার মজুমদারের মেয়ে। মেয়েটি স্থানীয় ব্রাহ্মনদী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী ছিল।

বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ জানায়, অধীর সিকদার ও মুন রানী মজুমদারের মধ্যে এক বছরের বেশি সময় ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। বিষয়টি জানার পর উভয় পরিবারের লোকজন তাতে অসম্মতি জানালে মঙ্গলবার তারা নিখোঁজ হন। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তাদের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। বুধবার সকালে গ্রামের মজুমদারপাড়ার একটি জামগাছে শাড়ি পেচানো অধীর কুমারের ও নিচে মুন রানীর লাশ দেখতে পান স্থানীয়রা।

ভাঙ্গা থানার ওসি সৈয়দ লুৎফর রহমান বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।



আরো সংবাদ