২৪ জুলাই ২০২১
`

রাজবাড়ীতে পদ্মাপাড় লোকারণ্য, স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত


চলমান করোনা মহামারীতে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে ঈদুল আজহার ছুটিতে রাজবাড়ী জেলা শহর সংলঘ্ন পদ্মার পাড় লোকেলোকারণ্য হয়ে উঠেছে। ঈদের আগের দিন মঙ্গলবার থেকে প্রতিদিন পদ্মার পাড়ে হাজার হাজার মানুষ ঘুরতে আসছেন। সকাল থেকেই লোকজনের উপস্থিতি দেখা যায়। আর বিকেলে এই লোক সমাগম বহুগুণ বেড়ে যায়। সামাজিক দূরত্ব তো দূরের কথা মুখে মাস্কও পরেন না বেশির ভাগ লোক। তরুণ-তরুণীদের পাশাপাশি শিশুসহ বিভিন্ন বয়সের মানুষের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে এখানে। স্বাস্থ্যবিধি পালনে তাদের কোনো আগ্রহ দেখা যায় না।

লকডাউনের শিথিলতার সুযোগে এমনটি হচ্ছে বলে অনেকে মনে করছেন। ঈদের দিন বিকেলে ও বৃহস্পতিবার সকালে রাজবাড়ীর একমাত্র বিনোদন কেন্দ্র জেলা শহরের গোদার বাজার ও সোনাকান্দর ঘাট এলাকার পদ্মা নদীর পাড়ে গিয়ে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। পাশাপাশি এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, এই চিত্র মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে। অবশ্য এর আগেও প্রতিদিন কম-বেশি ভ্রমণ পিপাষুরা ভির করছেন এই এলাকায়। তবে ঈদের দিন থেকে উপস্থিতি ব্যাপকভাবে বেড়েছে।

হাজারো মানুষের সমাগম সেখানে। একইসাথে পদ্মার পড়ে মেলা বসেছে। ভাসমান
দোকানির পাশাপাশি সেখানে নাগর দোলা, চরকাসহ বিভিন্ন বিনোদন সামগ্রীতে গাদাগাদি করে চড়ছে শত শত আগত নারী-পুরুষ ও শিশু। তাদের বেশির ভাগের মুখে মাস্ক নেই। যদিও সেখানে পুলিশও ছিল। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিরব ভূমিকায় রয়েছে।

মেলার আয়োজকদের সাথে কলা বলে জানা গেছে, এ অবস্থা চলবে আরো দু’দিন। আয়োজকরা জানায়, প্রতিবছর ঈদের সময় রাজবাড়ী শহরেরর নৈসর্গিক নির্মল ও প্রাকৃতিক বিনোদন কেন্দ্র হিসেবে জেলার বাইরে থেকেও অনেকে পদ্মা পাড়ে আসেন। তাদের জন্য মেলার আয়োজন করা হয়।



আরো সংবাদ


টোকিও অলিম্পিকে প্রথম স্বর্ণ চীনের টাইগারদের চোখ এখন ‘ফাইনালে’ দেশে তৈরি হচ্ছে ফেসবুক-হোয়াটসঅ্যাপের বিকল্প : প্রতিমন্ত্রী চীন থেকে ২৬ বা ২৭ জুলাই আসবে আরো ৩০ লাখ ডোজ টিকা বিয়ানীবাজারে ২ গ্রামবাসীর সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত, দোকানপাট ভাংচুর সুবর্ণচরে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ ফ্রান্সের পার্লামেন্টে বিতর্কিত ‘বিচ্ছিন্নতাবাদ বিরোধী’ আইন পাস রোববার থেকে সীমিত আকারে চলবে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন : সংশোধনের চেয়ে বাস্তবায়ন জরুরি ২৮ কেজির ভোল মাছের দাম ৪ লাখ ৬২ হাজার ৭০০ টাকা করোনায় আরো ১৯৫ জনের মৃত্যু, শনাক্তের হার ৩২.৫৫

সকল