০৯ মার্চ ২০২১
`

শিবপুরে নার্সকে গণধর্ষণের অভিযোগ, আটক ১

ছোট বোনের ঝামেলার কথা বলে ডেকে নিয়ে বড় বোনকে গণধর্ষণ - প্রতীকী ছবি

নরসিংদীর শিবপুরে এক নার্সকে (২০) গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাতে উপজেলার আশুতিয়া এলাকায় এ ঘটনায় বুধবার দু’জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা দু’জনকে আসামি করে শিবপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী তরুণীর বাবা।

অভিযুক্তরা হলেন শিবপুরের মজলিশপুর এলাকার তারা ভূইয়ার ছেলে হারুন ভূইয়া (২০) ও একই এলাকার মতিন কমান্ডারের ছেলে মনির ভূইয়াসহ (২০) অজ্ঞাতনামা দু’জন।

ভুক্তভোগীর পরিবার ও পুলিশের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ভুক্তভোগী নরসিংদীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে নার্সের চাকরি করেন। গত আট মাস আগে তার বিয়ে হয়। চাকরির সুবাদে তিনি নরসিংদীতেই থাকেন। মঙ্গলবার সকালে তরুণীর বাবা ও ছোট মেয়ে পাশের গ্রামে তার এক নিকটাত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। ওই দিন সন্ধ্যায় অভিযুক্ত হারুন ভূইয়া তার ব্যবহৃত মুঠোফোন থেকে নার্সকে ফোন করে জানান, তার ছোট বোনকে নিয়ে একটু ঝামেলা হয়েছে। তিনি যেন দ্রুত বাড়ি ফিরে যান।

ওই সময় ছোট বোনের নম্বরে ফোন করে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হয়ে রাতে মজলিশপুরের উদ্দেশে রওনা হয়ে রাত পৌনে ১০টায় মজলিশপুর পৌঁছেন তিনি।

ওই সময় অপর অভিযুক্ত মনির ভূইয়া ছোট বোনের কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে একটি কলা বাগানে নিয়ে যান। সেখানে যাওয়ার পর অভিযুক্ত হারুন, মনির ও অজ্ঞাতনামা দুজন জোরপূর্বক পালাক্রমে ধর্ষণ করেন।

পরে অজ্ঞাত দুজন চলে গেলে অভিযুক্ত হারুন ও মনির ওই নার্সের আত্মীয়কে ফোনে জানান, ওই নার্স অসুস্থ অবস্থায় কলা বাগানে পড়ে আছেন।

খবর পেয়ে ওই আত্মীয় ও ছোট বোন দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে নির্যাতিতাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যান।

এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার ওই নার্সের বাবা বুধবার রাতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত মনির ভূইয়াকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা আজিজুর রহমান বলেন, মামলা দায়েরের পর মনির ভূইয়া নামের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধর্ষণের ঘটনায় তার সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছে। বাকি অভিযুক্তদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।



আরো সংবাদ