০৪ মার্চ ২০২১
`

টঙ্গীতে তাবলীগের সা’দপন্থীদের ওপর জোবায়েরপন্থীদের হামলা, আহত ১০

হামলায় আহত একজন - ছবি : নয়া দিগন্ত

গাজীপুরের টঙ্গীতে মসজিদে ঢুকে তাবলীগ জামাতের সা’দপন্থীদের ওপর হামলা চালিয়েছে জোবায়েরপন্থীরা। হামলায় স্থানীয় আমিরসহ ১০ জন আহত হয়েছেন এবং গুরুতর আহত দু’জনকে হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন সা’দপন্থীরা।

সোমবার রাতে টঙ্গী ইসলামপুর (দত্তপাড়া) আলম মার্কেট এলাকায় বায়তুস সালাম জামে মসজিদে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় তাবলীগের দু’টি গ্রুপের মধ্যে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। উত্তেজনা নিরসনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। সোমবার রাতেই গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের দক্ষিণ জোনের ডিসিসহ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন।

মাওলানা সা’দপন্থী হাজী মনির জানান, সোমবার বাদ এশা তারা ২০ থেকে ২৫ জন মুসল্লি মিলে মসজিদে আমল করছিলেন। তাবলীগের মাসুদ পাটোয়ারি তালিম দিচ্ছিলেন। এ সময় জোবায়েরপন্থী ইঞ্জিনিয়ার সামসুল হক, আবু হানিফ ও মজিবুর রহমানের নেতৃত্বে পাঁচ শতাধিক লোক অতর্কিতে মসজিদ ঘেরাও করে ভেতরে ঢুকে হামলা চালায়। হামলাকারীরা তালিমরত মুসল্লিদের মারধর করে মসজিদ থেকে বের করে দেয়। হামলায় তালিমের আমীর মাসুদ পাটোয়ারি ও হাজী জহিরুল ইসলামসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত দু’জনকে রাতেই টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

তাবলীগ জামাতের শীর্ষ মুরব্বী মাওলানা সা’দ কান্দলভীপন্থী হাজী মনির মঙ্গলবার নয়া দিগন্তকে জানান, এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। মুরব্বীদের সাথে মাশুয়ারা (পরামর্শ) করে করণীয় নির্ধারণ করা হবে।

হামলায় অভিযুক্ত জোবায়েরপন্থী মজিবুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘সা’দপন্থীদের নিষেধ করা সত্ত্বেও তারা মসজিদে তালিম করছিল। তাই তাদেরকে নিষেধ করতে গিয়েছিলাম।’

এ ব্যাপারে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। উভয় পক্ষের মধ্যে সমঝোতার চেষ্টা চলছে।



আরো সংবাদ