০৭ মার্চ ২০২১
`

স্বামীকে বাঁচাতে যেয়ে ছেলে ও পুত্রবধূর হাতে প্রাণ গেল সরলা রানীর!

স্বামীকে বাঁচাতে যেয়ে ছেলে ও পুত্রবধূর হাতে প্রাণ গেল সরলা রানীর! -

জমি বিক্রি করে স্বামীকে চিকিৎসা করাতে চাওয়া অপরাধ হলো সরলা রানী বিশ্বাসের (৫৫)। ওই অপরাধে তাকে পিটিয়ে হত্যা করলেন তার ছেলে ও পুত্রবধূ। রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি জঙ্গল ইউনিয়নে এমনি অভিযোগ উঠেছে ছেলে বাবলু বিশ্বাস ও তার স্ত্রী সবিতা রানী বিশ্বাসের বিরুদ্ধে। পুলিশ মঙ্গলবার সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে পাঠিয়েছে।

সরলা রানী উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের জঙ্গল নতুনপাড়া গ্রামের সুকুমার বিশ্বাসের স্ত্রী।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, সুকুমার বিশ্বাসের দুই ছেলে রয়েছে। একজন ভারতে বসবাস করেন। অন্যজন বাবা-মায়ের সাথে বাড়িতে থাকেন। দীর্ঘ দিন ধরে সুকুমার বিশ্বাস জটিল রোগে ভুগছেন। ছেলেরা বাবার ওষুধ ও চিকিৎসা না করায় স্ত্রী সরলা বাড়ির কয়েকটি গাছ বিক্রি করে স্বামীকে ভারতে নিয়ে যেতে পাসপোর্ট তৈরি করেন। এরপর তিনি জমি বিক্রি করতে চাইলে ছেলে বাবলু বিশ্বাস ও তার স্ত্রী সবিতা রানী বিশ্বাসের সাথে তার বিরোধের সৃষ্টি হয়। তাদের নামে জমি রেজিস্ট্রি করে দেয়ার জন্য মায়ের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে থাকেন। এ নিয়ে গত মঙ্গলবার বাবলু ও তার স্ত্রী মাকে পিটিয়ে আহত করেন বলে জানায় স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা। ওই ঘটনায় সরলা মারাত্মক আহত হলে তাকে ফরিদপুর হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসা শেষে বাড়িতে নিয়ে আসার পর গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। ওই রাতে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে।

বালিয়াকান্দি থানার ওসি তারিকুজ্জামান বলেন, এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে লাশ উদ্ধার করে মঙ্গলবার ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।



আরো সংবাদ