২৬ নভেম্বর ২০২০

ভেদরগঞ্জে শিশু ধর্ষণের ৭দিন পর থানায় মামলা

ভেদরগঞ্জে শিশু ধর্ষণের ৭দিন পর থানায় মামলা - সংগৃহীত

ভেদরগঞ্জে ৮ বছরে এক কন্যা শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পারিবারিক ও স্থানীয় ভাবে ধর্ষণের বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করে ৭দিন পর শনিবার রাতে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে ভেদরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। রোববার দুপুরে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে শিশুটির ডাক্তারী পরিক্ষা করানো হয়েছে।

মামলার এজাহার, ধর্ষিতার পারিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার বাসুদেবপুর গ্রামে ৮ বছর বয়সী মেয়ে ও স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনির ছাত্রি গত ১৭ অক্টোবর দুপুরে বাড়ির পাশে খেলা করছিল। এ সময় একই গ্রামের মামলায় অভিযুক্ত শিশির নামে নবম শ্রেনির এক ছাত্র শিশুটিকে পাশের বাগানে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের শিকার শিশুটির যৌনাঙ্গ তবিত হয়ে রক্ত ঝড়তে থাকলে বিষয়টি পরিবারের মধ্যে জানাজানি হয়। ধর্ষিতা শিশুটির রক্তরন বন্ধ না হওয়ায় তার পরিবার ভেদরগঞ্জ স্থানীয় একটি প্রাইভেট কিনিকে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা (ক্ষত স্থানে সেলাই) করেন। স্থানীয় ভাবে বিষয়টি ব্যাপক জানাজানি হলে ঘটনার ৭দিন পর শনিবার রাতে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে একজনকে আসামী করে ভেদরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা হওয়ার পর থেকে মামলায় অভিযুক্ত শিশির পলাতক রয়েছে।

মামলার বাদী বলেন, আমার ছোট মেয়েকে ধর্ষণ করে তবিত করেছে। আমি এর ন্যায় বিচার প্রার্থনা করছি।
ভিকটিমের দাদী জানায়, ধর্ষণের ৭দিন পার হয়ে গেলেও থানায় যেতে পারিনি। পরবর্তীতে স্থানীয়দের সহায়তায় নাতনিকে নিয়ে থানায় গিয়ে মামলা করতে সক্ষম হয়েছি।

ভেদরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এবিএম রশিদুল বারি বলেন, ধর্ষণের ঘটনার ৭ দিন পর শিশুটির পিতার আবেদনের প্রেক্ষিতে মামলা হয়েছে। শিশুটিকে আজ রোববার দুপুরে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ডাক্তারী পরীা করানো হয়েছে। মামলার তদন্ত ও আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


আরো সংবাদ