০১ ডিসেম্বর ২০২০

টাঙ্গাইলে কলেজছাত্রীকে অপহরণ করে রাতভর গণধর্ষণ

৫ জনকে আসামি করে মামলা

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে এক কলেজছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। সোমবার সন্ধ্যায় তাকে যেখান থেকে অপহরণ করা হয়েছিল মঙ্গলবার ভোরে তাকে সেখানেই ফেলে রেখে যান ধর্ষণকারীরা।

গুরুতর অবস্থায় এই তরুণীকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ভিকটিম তরুণী টাঙ্গাইল শহরের একটি সরকারি কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্রী। করোনাভাইরাসের জন্য কলেজ বন্ধ থাকায় তিনি গোপালপুরে গ্রামের বাড়িতে তার মায়ের সাথে বসবাস করেন। তার বাবা বেঁচে নেই।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে কথা হলে ভিকটিম এই তরুণী জানান, যারা তাকে অপহরণ করে ধর্ষণ ও নির্যাতন করেছেন তাদের সবাইকে তিনি চেনেন। তারা হলেন, গোপালপুর উপজেলার কাগুজীআটা গ্রামের শফিকুল (২৫), এনামুল (২৮), জালাল (৩৮), খালেক (৪২) ও আলতাব আলী (৪২)। তারা সবাই স্থানীয় মির্জাপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফ আলীর লোক বলে জানান ভিকটিম।

তিনি বলেন, ‘শফিকুল ও এনামুল আগে থেকেই আমাকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। তাদের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিভিন্ন সময় তারা আমাকে হুমকি দিত, ভয়ভীতি দেখাত। আমি সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে গোপালপুরের মোহনপুর বাজার থেকে বাজার করে বাড়ি ফিরছিলাম। বাজারের পশ্চিমপাশে ছোট ব্রিজের কাছে এলে শফিকুল-এনামুলসহ পাঁচজনে আমাকে জোর করে গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে নৌকায় তুলে। তারা আমাকে শফিকুলের বাড়িতে নিয়ে একটি ঘরে আটকে রেখে সারারাত আমাকে পালাক্রমে ধর্ষণ ও নির্যাতন করে। মঙ্গলবার ভোর ৫টার দিকে তারা আমাকে যেখান থেকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল সেখানে ফেলে রেখে যায়।’

কাঁদতে কাঁদতে তিনি বলেন, ‘আমাকে যারা এভাবে নির্যাতন করেছে আমি তাদের ফাঁসি চাই।’

ভিকটিমের নানা বলেন, ‘সোমবার সন্ধ্যার পর থেকে ওকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। মঙ্গলবার ভোরে মোহনপুর বাজারের পশ্চিমপাশের ছোট ব্রিজের কাছ থেকে গুরুতর অবস্থায় তাকে পাওয়া যায়। তার কাছে বিস্তারিত শুনে সাথে সাথে তাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসি।’

এ সময় তিনিও ফুপিয়ে ফুপিয়ে কাঁদছিলেন এবং তিনিও ধর্ষকদের ফাঁসির দাবি জানান।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আরএমও ডা: শফিকুল ইসলাম সজিব জানান, ‘ভিকটিমের অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। তবে তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন। তার চেকাপের জন্য তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। রিপোর্ট পেলেই প্রকৃত বিষয় জানা যাবে।’

এ ব্যাপারে নির্যাতিতার মা অভিযুক্ত ওই পাঁচজনকে আসামি করে মঙ্গলবার বিকেলে গোপালপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। 

গোপালপুর থানার ওসি মোশারফ হোসেন বিকেলে নয়া দিগন্তকে বলেন, ‘এ ব্যাপারে মামলা দায়ের হয়েছে। আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’


আরো সংবাদ