২৫ অক্টোবর ২০২০

সিঁধ কেটে ঘর থেকে তুলে নিয়ে শিশুকে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

অভিযুক্ত আলী হোসেন - ছবি : সংগৃহীত

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার সাঁতারপুর ইউনিয়নে ছয় বছর বয়সী এক মেয়েশিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ ধর্ষক আলী হোসেনকে (৫৫) গ্রেফতার করেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ সদরের শোলাকিয়া এলাকার গাছবাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি করিমগঞ্জ উপজেলার সাঁতারপুর ইউনিয়নের আব্বাস আলীর ছেলে।

পুলিশ জানায়, গত রোববার (৬ সেপ্টেম্বর) অভিযুক্ত ধর্ষক আলী হোসেন সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত শিশুটিকে তুলে এনে ধর্ষণ করে।

করিমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাহিদ হাসান সুমন জানান, ঘটনার পর থেকে আলী হোসেন পলাতক ছিলেন। তিনি পালিয়ে ঢাকা চলে যান। পুলিশ কৌশলের আশ্রয় নিয়ে সেখান থেকে তাকে গাছবাজার এলাকায় আসতে বলে। পুলিশের ফাঁদে পা দিয়ে আলী হেসেন বৃহস্পতিবার দুপুরে গাছবাজারে পৌঁছালে কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের সহযোগিতায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। আসামিকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

করিমগঞ্জ থানার ওসি মো: মমিনুল ইসলাম জানান, তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে আরো জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এজন্য আদালতে রিমান্ডের আবেদন প্রক্রিয়া চলছে।

তিনি আরো জানান, গ্রেফতারকৃত আলী হোসেন একজন বিকৃত রুচির মানুষ। তার বিরুদ্ধে এ ধরণের আরো অভিযোগ রয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত রোববার খাবার শেষে শিশুটি নিজেদের ঘরে বাবা-মায়ের সাথে ঘুমিয়ে ছিল। মধ্যরাতের দিকে ধর্ষক আলী সিঁধ কেটে তাদের ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত শিশুটিকে বাড়ির পাশের ফসলি মাঠে তুলে নিয়ে যান। সেখানে শিশুটিকে ধর্ষণ শেষে ফেলে রেখে চলে যান। পরে শিশুটির চিৎকার শুনে গ্রামের এক নারী ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটিকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসেন।

পরের দিন সকালে শিশুটিকে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। বর্তমানে শিশুটির অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা গত সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) আলী হোসেনকে আসামি করে করিমগঞ্জ থানায় একটি অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকে পুলিশ তাকে ধরতে বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালায়। অবশেষে কৌশলে ফাঁদে ফেলে ধর্ষককে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।


আরো সংবাদ