২৭ অক্টোবর ২০২০

রাজধানীতে বাসা থেকে উচ্ছেদ চেষ্টার অভিযোগ কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে

রাজধানীতে বাসা থেকে উচ্ছেদ চেষ্টার অভিযোগ কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে -

রাজধানীর মুক্তাঙ্গনে চাঁদাবাজি ও এলটমেন্টকৃত বাসা দখলের ভয় দেখানোর অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে। এলটমেন্টকারী জাহাঙ্গীর করিম এই অভিযোগ নিয়ে দ্বারে-দ্বারে ঘুরলেও কোন প্রতিকার মিলছে না।

জানা গেছে, মুক্তাঙ্গনের ৬৭ নম্বর জিপিও এলটমেন্টটি ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন বসবাস করে আসছেন জাহাঙ্গীর কবির। সেখানে তিনি থাকেন এবং ব্যবসার মালপত্র রাখেন। মাস খানেক আগে রাত দশটার দিকে ভবনটি দখল নিতে কাউন্সিলর আবুল হোসেন তার সন্ত্রাসীরা বাহিনী নিয়ে গিয়ে জাহাঙ্গিরকে হুমকি ধমকি দেন।

এরপর থেকে কয়েক দফা কাউন্সিলরের অনুসারী স্থানীয় মাদক কারবারী কালাম, জাকির, জাবেদ, কেশব, রিপন ও বাতেন জাহাঙ্গিরের বাসায় তালা লাগায়। তখন তাদেরকে মোটা অংকের চাঁদা দিয়ে কোনোরকম রক্ষা হলেও এখনো এলটমেন্ট ছাড়তে হুমকি অব্যাহত রেখেছে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। এদিকে, জাহাঙ্গির করিম এর প্রতিকার চেয়ে সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্ট দপ্তর ও থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না।

জাহাঙ্গির করিম জানান, রুমটি সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা তৌহিদের নামে বরাদ্দকৃত। তার কাছ থেকে ভাড়া নিয়ে তিনি ছোট ব্যবসা করেন ও থাকেন। কিন্তু কিছুদিন হলো এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা এসে অব্যাহত হুমকি-ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে, কারবারী কালাম, জাকির, জাবেদ, কেশব, রিপন ও বাতেন মুক্তাঙ্গন এলাকায় মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।

মাস দেড়েক আগে গুলিস্তান-পল্টন এলাকার ফুটপাতের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর এনামুল হক আবুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা চেয়ে মানববন্ধন করেছিলেন স্থানীয় হকার ও পরিবহন শ্রমিকরা। উৎসব পরিবহন কাউন্টারে চাঁদাবাজি, ময়লার কন্টিনার সরিয়ে দোকান ভাড়া, ফুটপাথের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

জাহাঙ্গির করিমকে হুমকি ধমকির ব্যাপারে জানার জন্য কাউন্সিলর এনামুল হক আবুলের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘুমাচ্ছেন এবং অসুস্থ বলে অপরপ্রান্ত থেকে জানানো হয়।

এ বিষয়ে পল্টন থানায় যোগাযোগ করলে ডিউটি অফিসার জানান, বিষয়টি তার জানা নেই। তবে কেউ কোন অভযোগ করলে অবশ্যই তা আমলে নেয়া হবে।


আরো সংবাদ