২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

নিখোঁজের একদিন পর চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার

নিখোঁজের একদিন পর চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার -

শরীয়তপুরে নিখোঁজের একদিন পর কীর্তিনাশা নদীর পাড় থেকে মেহেদী হাসান (১০) নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার জপসা ইউনিয়নের লক্ষীপুর গুচ্ছগ্রামের পাশে ইটের ভাটা সংলগ্ন কীর্তিনাশা নদীর পাড় থেকে ভাসমান অবস্থায় শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয়।

মেহেদী হাসান উপজেলার জপসা ইউনিয়নের লক্ষীপুর গুচ্ছগ্রামের আজহার মাদবরের ছেলে এবং একই এলাকার মুশুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শেণীর ছাত্র।

নড়িয়া থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মেহেদী হাসান গতকাল রোববার দুপুরের খাবার শেষে খেলতে যাওয়ার উদ্ধেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর সে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। আজ বেলা ১টার সময় তার পরিবার নড়িয়া থানায় বিষয়টি মৌখিকভাবে জানায়। এর কিছুক্ষণ পরে স্থানীয় ছোট ছোট ছেলেরা নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে মেহেদী হাসানের ভাসমান লাশ দেখেতে পেয়ে নড়িয়া থানা পুলিশকে খবর দেয়। নড়িয়া থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। শিশুটির পেটে ধারালো অস্ত্রের আঘাত ও মুখে কিল ঘুসির আঘাত রয়েছে।

নড়িয়া থানার ভাপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হাফিজুর রহমান জানান, নিহত শিশুটির পেটে ও মুখে আঘাতের চিহ্ন থাকায় আমরা প্রাথমিকভাবে ধারনা করছি শিশুটিকে হত্যা করে নদীতে ফেলে দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে এখনো কিছুই জানা যায়নি। তবে জোরে তদন্ত চলছে এবং ময়না তদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর মূল কারণ জানা যাবে।


আরো সংবাদ