২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

গাজীপুরে বাল্যবিবাহের প্রস্তুতিকালে বর-কনের কারাদণ্ড

-

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় বাল্যবিবাহের প্রস্তুতিকালে তিন সন্তানের জনক বর ও শিশু কনেকে আটক করেছে পুলিশ। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই দুজনকে কারাদণ্ড প্রদান করেছে। রোববার দুপুরে বরকে কারাগারে এবং কনেকে দুস্থ ও কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

সাজাপ্রাপ্তরা হলেন, কালিয়াকৈর উপজেলার ফুলবাড়িয়া উত্তরপাড়া গ্রামের মোজাম্মেল হকের ছেলে তারেক মিয়া (২৪) ও কাঁচিঘাটা গ্রামের আব্দুল কাদেরের মেয়ে রোজিনা আক্তার (১৬)। রোজিনা এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন।

ফুলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম মিয়া জানান, তারেক মিয়া পেশায় ট্রাক চালক। তিনি বিভিন্ন সময়ে আরো তিনটি বাল্য বিবাহ করেছেন। তাদের সংসার জীবনে তিন ছেলে-মেয়েও রয়েছে। এদের মধ্যে এক স্ত্রী বিদেশে ও আরেক স্ত্রী বাবার বাড়ি চলে গেছেন। কিন্তু তারেক মিয়ার তিন স্ত্রী ও তিন সন্তান থাকার পরও এক অপ্রাপ্ত বয়স্ক ছাত্রীকে নানা প্রলোভনে বিয়ে করতে যান তারেক মিয়া। তিনি মোবাইল ফোনে ফুসলিয়ে পাশের কাঁচিঘাটা গ্রামের আব্দুল কাদেরের এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া মেয়ে রোজিনা আক্তারের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। পরে তিনি বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘদিন তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এ নিয়ে একাধিকবার গ্রাম্য শালিসও হয়েছে। তারপরও তারা তাদের সম্পর্ক বজায় রেখেছে।

সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার বিকেলে রোজিনা বিয়ের দাবীতে প্রেমিক তারেকের বাড়িতে ওঠেন। পরের দিন শুক্রবার স্থানীয় ইউপি সদস্য মো: ছিদ্দিকুর রহমান ও স্থানীয় মাতাব্বররা ওই বাড়িতে যান এবং প্রেমিক-প্রেমিকাকে বুঝিয়ে রোজিনাকে তার বাবার কাছে তুলে দেন। কিন্তু পরের দিন শনিবার সকালে রোজিনা আবারো তারেকের বাড়িতে চলে যান। পরে স্থানীয় কিছু লোক তাদের বিয়ের আয়োজন করেন। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানাধীন ফুলবাড়িয়া পুলিশ ক্যাম্পের পুলিশ তারেক ও রোজিনাকে আটক করে। পরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আদনান চৌধুরীর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

কালিয়াকৈর থানার ওসি মো: মনোয়ার হোসেন জানান, আদালত তারেক মিয়াকে দুই বছরের এবং কনে রোজিনাকে কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রের সেফ কাস্টিডিউতে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। রোববার দুপুরে পুলিশ তারেককে গাজীপুর কারাগারে এবং রোজিনাকে কোনাবাড়ি দুস্থ ও কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠিয়েছে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আদনান চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, তারেক আগে তিনটি বিয়ে করেছেন। তাদের তিনজনের বয়সও অপ্রাপ্ত ছিল। আবারো এরকম বাল্য বিবাহ ঘটানোর চেষ্টা করেছিলেন। এ অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে তারেককে দুই বছর সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া রোজিনা এ নিয়ে একাধিকবার আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছে। তার বাবা-মাও তাকে জিম্মায় নিতে চাননি। তাই তাকে কোনাবাড়ি দুস্থ ও কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়।


আরো সংবাদ

সীমান্তে মাইন, মুংডুতে ৩৪ ট্যাংক (১০০৯৮)কেন বন্ধু প্রতিবেশীরা ভারতকে ছেড়ে যাচ্ছে? (৭৭১৩)সৌদি রাজতন্ত্রকে চ্যালেঞ্জ করে সৌদি আরবে বিরোধী দল গঠন (৭৪৪২)৫৪,০০০ রোহিঙ্গাকে পাসপোর্ট দিতে সৌদি চাপ : কী করবে বাংলাদেশ (৪৯৩৫)কাশ্মিরিরা নিজেদের ভারতীয় বলে মনে করে না : ফারুক আবদুল্লাহ (৪৩৪০)ঐক্যবদ্ধ হামাস-ফাতাহ, ১৫ বছর পর ফিলিস্তিনে ভোট (৪০৯১)আ’লীগ দলীয় প্রার্থী যোগ দিলেন স্বতন্ত্র এমপির সাথে (৪০৬৯)শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া ১৫ দিন পর এইচএসসি পরীক্ষা (৩৭৮৩)কক্সবাজারের প্রায় ১৪০০ পুলিশ সদস্যকে একযোগে বদলি (৩৬৪৭)বিরাট-অনুস্কাকে নিয়ে কুৎসিত মন্তব্য গাভাস্কারের, ভারত জুড়ে তোলপাড় (৩৬১২)