১২ আগস্ট ২০২০

বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে পদ্মার পানি

বিপদসীর উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে পদ্মার পান -
24tkt

গত ২৪ ঘণ্টায় বৃদ্ধি পেয়ে ২৮ সেন্টিমিটার দৌলতদিয়া পয়েন্টে বিপৎসীমার ৮৩ সেন্টিমিটার ও পাংশার সেনগ্রাম পয়েন্টে ২৭ সেন্টিমিটার ২৫ সেন্টিমিটার ওপর পদ্মার পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া সদর উপজেলা মহেন্দ্রপুর গেজ স্টেশন পয়েন্টে পদ্মার পানি বিপৎসীমা ছুঁই ছুঁই করছে। রাজবাড়ীর তিনটি গেজ স্টেশন পয়েন্টের মধ্যে পাংশার সেনগ্রাম ও গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া পয়েন্টে পদ্মার পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বৃহস্পতিবার বিকালে রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ডের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর মো. ইউছুফ আলী খান এ তথ্য জানান।

পদ্মায় দ্বিতয়ী দফায় পানি বৃদ্বির ফলে রাজবাড়ীর বেরী বাঁধের বাইরের পদ্মার কুলে ও চরাঞ্চলে ১০টি ইউনিয়নের বিস্তৃর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। আর পানি বন্দি হয়ে পরেছে হাজার হাজার মানুষ ও তাদের গবাদি পশুগুলো।

জানা গেছে, জেলার পাংশার হাবাসপুর, বাহাদুরপর, কালুখালীর কালিকাপুর, রতনদিয়া, সদরের মিজানপুর, বরাট ও গোয়ালন্দের ছোট ভাকলা, দেবগ্রাম ও দৌলতদিয়া ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। এছাড়া পানিতে তলিয়ে গেছে নদী তীরবর্তী বিস্তীর্ণ এলাকার ফসলি জমিসহ নিচু এলাকার রাস্তা-ঘাট। কোথাও কোথাও বসতবাড়িতেও পানি উঠেছে।

বিস্তীর্ণ এলাকা তলিয়ে যাওয়ায় দেখা দিয়েছে গবাদি পশুর খাদ্য সংকট এবং নষ্ট হয়েছে বীজতলাসহ বিভিন্ন ফসল ও সবজি খেত। এছাড়া খাওয়া-দাওয়া ও চলাচলসহ নানান সমস্যায় পড়ছেন এসব এলাকার বাসিন্দারা।

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, এখন পর্যন্ত পানিবন্দিদের তালিকা প্রস্তুত হয়নি। তবে জেলা ত্রাণ ও পূর্নবাসন অফিসার জানান, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকারে দেয়া ১৫০ মেট্রিক টন চাল, নগদ আড়াই লাখ টাকা, গোখাদ্য, শিশু খাদ্যসহ শুকনো খাবার মজুদ রয়েছে। শুখনো খাবার, শিশু খাদ্য, গোখাদ্য উপজেলা পর্যায়ে বন্টন করেছেন।

এছাড়া গোয়ালন্দের ৮শ পরিবারকে ইতোমধ্যে ত্রাণ সহায়তা দিয়েছেন এবং পর্যায়ক্রমে তালিকা করে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা দেবেন।


আরো সংবাদ