০৭ আগস্ট ২০২০

শ্রেণিকক্ষে শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা, অভিযুক্ত আটক

ধর্ষণের অভিযোগে আটক আসলাম - ছবি : নয়া দিগন্ত
24tkt

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়ায় তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টাকালে মোঃ আসলাম শেখ (২০) নামে এক যুবককে আটক করে গণধোলাই দিয়েছে স্থানীয়রা। এরপর থানায় খবর দিয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। এ ব্যাপারে ওই শিশুর মা গোয়ালন্দ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

আসলাম দৌলতদিয়া ৯নং ওয়ার্ড চর দৌলতদিয়া গ্রামের পরশ উল্লা মাতুব্বর পাড়ার শুকুর আলী শেখের ছেলে।

বুধাবার সকাল সারে ৯টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাটের পূর্বদিকে বাহের চর দৌলতদিয়া ১নং ওয়ার্ড ছাত্তার মেম্বর পাড়া চাঁদখার পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

শিশুটির বাবা মারা যাওয়ায় তারা দুই ভাই-বোন মায়ের সাথে নানা বাড়িতে থাকে।

ওই শিশুটির মা থানায় লিখিত অভিযোগে জানান, তার মেয়ে চাঁদখার পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী। প্রতিদিনের মত তার মেয়ে স্কুলে প্রাইভেট পড়তে আসে। এ সময় তার সাথে আরো দুটি শিশু ছিল। শিক্ষক আসতে দেরি হওয়ায় তার মেয়ে ও অন্য শিশুরা মিলে রুমের মধ্যে খেলা করছিল। এমন সময় অভিযুক্ত আসলাম কৌশলে অন্য শিশুদের রুম থেকে বের করে দেয়। এরপর তার মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় তার মেয়ের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসে। এরপর আসলামকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনা স্থলে গিয়ে জনতার হাত থেকে আসলামকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

ওই শিশুটির নানা ও স্থানীয়রা জানান, আসলাম ওই স্কুল মেরামত কাজের একজন শ্রমিকের কাজ করে আসছিল। ঘটনার দিন ছাঁদ ঢালাই কাজ চলছিল। এ সময় শিশুটি সহপাঠিদের সাথে পড়তে গেলে আসলাম সুকৌশলে স্কুলের রুমের মধ্যে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এরপর ওই শিশুটির চিৎকার শুনে তারা এগিয়ে এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে।

পুলিশ হেফাজতে থাকা অবস্থায় আটক আসলাম বলে, আমি স্কুলের ছাঁদ ঢালাই কাজ করছিলাম। এ সময় আমি ওই মেয়েটিকে শুধু নাম জিজ্ঞাসা করেছি। এ ছাড়া আর কিছুই করি নাই। ওই এলাকার লোকজন বিনা কারণে আমাকে মারপিট করে পুলিশে দিয়েছে।

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আমিকুর রহমান পিপিএম জানান, শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে আসলামকে থানা হেফাজতে আনা হয়। এরপর ওই শিশুটির মায়ের লিখিত অভিযোগ ও শিশুটির জবানবন্দী পেয়ে তাকে জেল হাজতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।


আরো সংবাদ