২২ সেপ্টেম্বর ২০২০

করোনা দুর্যোগে সকল রাজনৈতিক দলকে এক থাকতে হবে : শামীম ওসমান

করোনা দুর্যোগে সকল রাজনৈতিক দলকে এক থাকতে হবে : শামীম ওসমান - সংগৃহীত

করোনাভাইরাসের কারণে দেশে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সকল রাজনৈতিক দলকে একসাথে থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের আওয়ামী লীগের সাংসদ একেএম শামীম ওসমান। বৃহস্পতিবার বিকেলে শহরের চাষাঢ়ায় রাইফেল ক্লাবে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে শামীম ওসমান এ অনুরোধ জানান।

তিনি বলেন, এই করোনার কারণে সৃষ্ট সমস্যা কতদিন থাকবে জানি না। তবে প্রশাসন, সাংবাদিক সমাজ, পুলিশ সুপার, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলকে এক থাকতে হবে। এক থেকে জনগণকে সচেতন করতে হবে। রাজনৈতিক কথা বলছি না। কীভাবে সুবিধা হয় সেই পরামর্শ চাই।

শামীম ওসমান বলেন, করোনা দুর্যোগে আমাদের ঘরে থাকতে হবে। সেফ কোয়ারেন্টাইন শব্দটি এখনকার না। এটা সাড়ে ১৪শ বছরে আগে আমাদের মহানবী হযরত মুহাম্মদ ( সি: ) নিজেই বলে গেছেন। তিনি বলেছেন যেখানে মহামারি হবে সেখান থেকে কোন মানুষ যাবে না। কিংবা সেখানে সুস্থ মানুষও যাবে না। তিনি বলেন, হাত তোলা হয়ে গেছে এ দেশ অলি আল্লাহ দেশ। আল্লাহ আমাদের দোয়া কবুল করে আমাদের করোনা থেকে মুক্ত করবেন।

তিনি বলেন, আল্লাহ ভক্ত জাতির জনকের কন্যা মাননীয় প্রধামন্ত্রীর সময়োচিত পদক্ষেপের কারণে আমাদের দেশ এখনও অন্যান্য দেশের চেয়ে ভালো আছে। আল্লাহর কাছে এজন্য অশেষ শুকরিয়া। যে দেশের রাষ্ট্রপ্রধান আল্লাহভক্ত সে দেশের প্রতি আল্লাহর একটা অশেষ রহমত থাকে। যে ভাইরাস আমাদের আক্রমন করেছে সেটা থেকে আল্লাহ যেন আমাদের রক্ষা করেন সেজন্য দোয়া প্রার্থনা করছি।

জনসাধারণকে বিনা কারণে বাইরে বের না হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে আওয়ামী লীগের এই সাংসদ বলেন, নিজে সাহসী প্রমাণ করতে চাইলে ঘরে বসে থাকেন। রাস্তায় ঘোরাটা বাহাদুরি না। আপনি সচেতন না হয়ে বিনা কারণে সাহস দেখিয়ে মানুষের মৃত্যুর কারণ হবেন না। এই মৃত্যু আমাদের কাম্য না। সব ধর্মেই সচেতনতার কথা বলা হয়েছে। আমাদের এটা মেনে চলা উচিত। আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী এটা মেনে চলবো। প্রশাসন, পুলিশ, র‌্যাব সেনাবাহিনী যদি রাহমর মানুষ সরাতে ব্যস্ত রাখি তাহলে অন্য কাজ তারা কীভাবে করবে।

তিনি বলেন, আমরা গত ১৫-২০ দিন আগে থেকেই মাঠে নেমেছি। নীরবেই প্রথমে কাজ করেছি। মানুষের বিপদে মানুষ হিসেবে তাদের পাশে দাড়িয়েছি। সরকারের পক্ষে একা দেশের ষোলো কোটির প্রতিটি মানুষের প্রতি খেয়াল রাখা সম্ভব না। আমি ৯৯ লক্ষ ৯৯ হাজার টাকা অনুদান দিয়েছি। এই অনুদান দিয়ে যারা কারও কাছে হাত পাততে না পারেন তাদের বাড়িতে খাবার পৌছে দেওয়া হবে।

শামীম ওসমান বলেন, যারা বাড়িওয়ালা আছেন তাদের যদি সম্ভব হয় এক মাসের ভাড়া মওকুফ করেন। এইটা সদকা হবে, যাকাত হবে। সিটি কর্পোরেশনকে অনুরোধ করবো, হোল্ডিং ট্যাক্সটা ছাড় দেন।

গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্দেশে সাংসদ বলেন, সাংবাদিক ভাইদের স্যালুট করি, সম্মান জানাই। পক্ষে কিংবা বিপক্ষে লেখেন সকলকে স্যালুট করি। কারণ আপনাদের অনেকের ঘরে চুলা জ্বলতেছে না তারপরও কষ্ট করে সংবাদ সংগ্রহ করতেছেন। আপনাদের প্রয়োজন মনে করলে আমাকে জানাবেন।

তিনি বলেন, এই একটা সুযোগ মানুষের সেবা করে আল্লাহকে খুশি করার । কে কখন মারা যাবে বলা তো যায় না। কে কোন ধর্মের তা না দেখে এই সময় মানুষের পাশ্বে দাড়ান ।এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদাবারিক।

 


আরো সংবাদ