০২ জুন ২০২০

গাজীপুরে কোয়ারেন্টিন থেকে বাড়ি ফিরছেন আরো ৭ ইতালি প্রবাসী

গাজীপুরে কোয়ারেন্টিন থেকে বাড়ি ফিরছেন আরো ৭ ইতালি প্রবাসী - নয়া দিগন্ত

গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার পাবুর ১০শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে স্থাপিত কোয়ারেন্টিন সেন্টার থেকে ইতালিফেরত আরো সাত ব্যক্তিকে সুস্থতার ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে ওই সাত ব্যক্তিকে সুস্থতার মেডিকেল ফিটনেস্ সার্টিফিকেট দেয়া হয়। বুধবার ছাড়া পেয়ে বাড়ি ফিড়বেন তাঁরা।

গত ১৮ মার্চ ওই সাতজনকে গাজীপুর মহানগরের পূবাইলের মেঘডুবি ২০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের কোয়ারেন্টিন সেন্টার থেকে পাবুর মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছিল। এর আগে ১৬ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকার পর সোমবার জেলাসদরের মেঘডুবি কেন্দ্র থেকে ছাড়পত্র পেয়ে বাড়ি ফিরে যান নারী ও শিশুসহ ইতালী ফেরত ৩৬জন প্রবাসী।

পাবুর ১০শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে স্থাপিত কোয়ারেন্টিনের দায়িত্বে থাকা উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মজিবুর রহমান জানান, ইতালিফেরত সাত ব্যক্তিকে সুস্থতার সনদ ও পাসপোর্ট তাদের হাতে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষ যে কোনো সময় এই ব্যক্তিদের বাড়ি যাওয়ার জন্য ছেড়ে দিতে পারেন।

কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো: আব্দুস সালাম সরকার জানান, ইতালিফেরত সাত ব্যক্তি সুস্থ আছেন। বুধবার ছাড়া পাবেন তাঁরা। এছাড়া পাবুর ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কোয়ারেন্টিন কেন্দ্রে কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই নিয়ম না মেনে কেন্দ্রের ভেতর ঢুকে পড়েন একটি বেসরকারি টেলিভিশনের গাজীপুর জেলা প্রতিনিধির ক্যামেরাপারসন। কোয়ারেন্টিন কেন্দ্রে থাকা ইতালিফেরত সাতজন ব্যক্তির সংস্পর্শে যাওয়ায় সংক্রমণের ঝুঁকিতে পড়েন ওই সাংবাদিক। স্বাস্থ্য ঝুঁকি ও সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে পুলিশের সহযোগিতায় ২১মার্চ শনিবার রাতে ওই সাংবাদিককে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। পাবুর মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে ওই ফটোসাংবাদিকসহ দুই জন ৪এপ্রিল পর্যন্ত থাকবেন। এখানে কোয়ারেন্টিনে থাকা অপর একজনও বিদেশফেরত।

উল্লেখ, শরীরে জ্বর থাকায় গত ১৫ ও ১৬ মার্চ পূবাইলের মেঘডুবি ২০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের কোয়ারেন্টিন থেকে আটজনকে দুই দফায় রাজধানীর উত্তরায় কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। যাঁদের একজনের মধ্যে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। পরে গত ১৮ মার্চ বাকি সাতজনকে পাবুর মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে পাঠানো হয়। এনিয়ে জেলার দু’টি কোয়ারেন্টিন সেন্টার থেকে মোট ৪৩ জনকে করোনামুক্ত ছাড়পত্র দেয়া হয়।


আরো সংবাদ

দেওয়ানগঞ্জে আগাম বন্যা, নদী ভাঙনে হুমকির মুখে বাহাদুরাবাদ নৌ-থানা আবরার হত্যা : জিয়নের জামিন আবেদন নাকচ বিষোদগারের ভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপি রাজনৈতিক আইসোলেশনে : কাদের করোনা আক্রান্ত আইনজীবীদের বিশেষায়িত হাসপাতলে চিকিৎসা প্রদানে বার কাউন্সিলে আবেদন বাংলাদেশে নতুন আক্রান্ত রেকর্ড ২৯১১, মৃত্যু ৩৭ অ্যান্টিবায়োটিকের অধিক ব্যবহারে মৃত্যু বাড়বে আসামে ভয়ঙ্কর ভূমিধস, মাটিচাপায় মৃত অন্তত ২০ জন শ্বাসরুদ্ধ হয়েই ফ্লয়েডের মৃত্যু রংপুরে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে বাবা ছেলের মৃত্যু করোনায় ইউপি সচিবের মৃত্যুতে ধর্মপাশায় শোকসভা সোনারগাঁওয়ে করোনায় আক্রান্ত পরিবারে পুষ্টিকর খাবার বিতরণ

সকল