ঢাকা, মঙ্গলবার,৩১ মার্চ ২০২০

বাংলার দিগন্ত

কাপাসিয়ায় ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ

কাপাসিয়া (গাজীপুর) সংবাদদাতা

০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫,রবিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

ভুল চিকিৎসার শিকার হয়ে শামসুন্নাহার (২৬) নামে এক গৃহবধূ মারা গেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান। এ দিকে ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর প্রতিবাদ করায় ওই গৃহবধূর স্বামীকে হাসপাতালে বেঁধে রেখে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ডাক্তার দিয়ে অপারেশন না করে নার্স দিয়ে অপারেশন করার অভিযোগও পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটে গাজীপুরের কাপাসিয়ার আমরাইদ আইডিয়াল হাসপাতালে। শুধু তাই নয়, এ ঘটনায় থানায় মামলা দিতে গেলেও বাধা দেয় হাসপাতালের লোকজন। নিহত প্রসূতি দেওনা গ্রামের সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী।
পরিবারের লোকজন জানান, গত ২৪ আগস্ট সামসুন্নাহারের প্রসব ব্যথা শুরু হয়। বিকেলের দিকে তাকে আমরাইদ আইডিয়াল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক জানান, রোগীর গর্ভের সন্তানের অবস্থা ভালো নয়। মা ও সন্তানকে বাঁচাতে হলে জরুরি অপারেশন প্রয়োজন। পরে অপারেশনের মাধ্যমে সামসুন্নাহার কন্যাসন্তান জন্ম দেন। কিন্তু অপারেশনের সময় অচেতন করার পর প্রসূতির আর জ্ঞান ফেরেনি। দুই দিন চেষ্টার পর আমরাইদ আইডিয়াল হাসপাতালের লোকজন সামসুন্নাহারকে ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেন। ২৭ আগস্ট রোগীকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
সিরাজুল ইসলাম জানান, তিনি কাপাসিয়ার আইডিয়াল হাসপাতালে এ বিষয়ে জানতে গেলে হাসপাতালের মালিক রায়েদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিরন মোল্লা ভেতরে নিয়ে তাকে বেঁধে রাখেন। পরে কারো কাছে অভিযোগ না করার শর্তে তাকে ছেড়ে দেন। তিনি আরো বলেন, মৃত্যুর ঘটনায় থানায় অভিযোগ দিতে গেলে হিরন মোল্লা লোকজন দিয়ে হুমকি দেন এবং একটি প্রভাবশালী মহলকে দিয়ে আপোষের জন্য চাপ দিচ্ছেন।
অভিযোগের ব্যাপারে হিরন মোল্লা বলেন, আমি বিষয়টি জানতে পেরে রোগীর লোকজনের সাথে একটি রফাদফা করার চেষ্টা করেছি। এর বেশি কিছু আমি জানি না।

 

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫