ঢাকা, শনিবার,৩০ মে ২০২০

প্রথম পাতা

ইউরোপীয় পার্লামেন্টে বাংলাদেশে বিচারবহির্ভূত হত্যার তদন্ত দাবি

নয়া দিগন্ত ডেস্ক

১৪ এপ্রিল ২০১৭,শুক্রবার, ০০:০০


প্রিন্ট

বাংলাদেশে বিচারবহির্ভূত হত্যার ঘটনায় নিরপেভাবে তদন্ত করতে আহ্বান জানিয়েছেন ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সদস্য অ্যানথেয়া ম্যাকিনটায়ার।
রাজনৈতিক বিরোধীদের নিয়মিত হত্যার বিষয়ে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার আলোচনার প্রমাণ হাতে রয়েছে বলে সুইডেনের জাতীয় রেডিও দাবি করার পর ওয়েস্ট মিডল্যান্ডের কনজারভেটিভ দলীয় এমপির এই বক্তব্য এলো।
বাংলাদেশের এলিট বাহিনী র‌্যাব কিভাবে ‘ক্রসফায়ারের নামে’ মানুষ হত্যা করে, তা ওই বাহিনীর ‘উচ্চপদের এক কর্মকর্তার’ বয়ানে তুলে ধরেছে সুইডিশ রেডিও।
বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের বিতর্কে ম্যাকিনটায়ার বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকারকে নিরপরাধ নাগরিকদের প্রতি সহিংস এসব কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানানো উচিত। ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে স্বাধীন তদন্ত কমিশন গঠন করে দায়ীদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।’
তিনি বলেন, রেকর্ডিং অনুসারে, কোনো ব্যক্তিকে তুলে নেয়া, তাকে হত্যা করা এবং লাশ গায়েব করে দেয়ার জন্য র‌্যাব কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেয়া হতো। আর যাদের তুলে নেয়া হতো তারা প্রধানত বিরোধী দলের সদস্য।
এ বিষয়ে স্বতন্ত্র তদন্ত কমিশন গঠন করতে বাংলাদেশ সরকারের ওপর ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ও ফরেন অ্যাফেয়ার্স কমিটিকে চাপ দেয়ার আহ্বান জানান ম্যাকিনটায়ার।
সুইডিশ রেডিওর ওই প্রতিবেদনকে ‘অস্পষ্ট’ এবং ভাবমূর্তি ুণœ করা চেষ্টা হিসেবে বর্ণনা করেছে র‌্যাব।
মৃত্যুদণ্ড অপরাধ দমনে সহায়ক নয় : ইইউ
কূটনৈতিক প্রতিবেদক জানান, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) বলেছে, মৃত্যুদণ্ড দিয়ে অপরাধ দমন করা যায় না; বরং ক্রটিপূর্ণ বিচারিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে এ দণ্ড দেয়া হলে তা শুধরানোর উপায় থাকে না।
গতকাল ঢাকায় ইইউ দূতাবাসের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা উল্লেøখ করে বলা হয়েছে, গত ১২ এপ্রিল বাংলাদেশে তিনটি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী সর্বোচ্চ সাজা হিসেবে মৃত্যুদণ্ড দেয়ার বিরোধিতা করে ইইউ।
মৃত্যুদণ্ড বিলুপ্ত করার প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে সব মৃত্যুদণ্ডাদেশ স্থগিত করার জন্য বাংলাদেশের কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইইউ।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫