এমপিকে প্রধান অতিথি না করায় ডামুড্যায় ক্রীড়া অনুষ্ঠান বন্ধ

শরীয়তপুর সংবাদদাতা

শরীয়তপুরের ডামুড্যায় একটি বিদ্যালয়ের ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্যকে প্রধান অতিথি না করায় উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা অনুষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় বিদ্যালয়ের আশপাশে কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন। এতে এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ও চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ বলছে, একই স্থানে বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রিড়া অনুষ্ঠান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কর্মিসভা আহ্বান করায় অনুষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলার অবনতির আশঙ্কায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
ডামুড্যার মীর আব্দুল মজিদ উচ্চবিদ্যালয়ের কয়েক ছাত্র ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুর জেলার ডামুড্যা উপজেলার ধানকাঠি ইউনিয়নের চর পাতালিয়া এলাকার মীর আব্দুল মজিদ উচ্চবিদ্যালয়ে প্রতি বছরের মতো গতকাল শুক্রবার থেকে দুই দিনব্যাপী বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার ও শরীয়তপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদারকে প্রধান অতিথি করা হয়। নির্ধারিত দিন শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠান শুরু হয়। এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, পৌর মেয়রসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিদের বিশেষ অতিথি করা হয়। অনুষ্ঠানের সভাপতি করা হয় বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি প্রফেসর ওমর নুর মোস্তফা মীরকে। শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাককে প্রধান অতিথি না করায় সকাল ১০টায় ডামুড্যা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাস্টার কামাল উদ্দিন আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বাবলু সিকদার, ডামুড্যা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন মাঝি, পৌরসভা মেয়র হুমাযূন কবীর বাচ্চু ছৈয়াল, উপজেলা ছাত্রলীগের ৩০-৪০ নেতাকর্মী অনুষ্ঠানস্থলে এসে তা বন্ধ করে দেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় বিদ্যালয়ের আশপাশে চার-পাঁচটি ককটেল বিস্ফেরণের ঘটনা ঘটে। এতে এলাকাবাসীর মধ্যে আফঙ্ক ও চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এ ঘটনার পর বিদ্যালয়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক তার ছেলের চিকিৎসা করানোর জন্য বর্তমানে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করায় এ বিষয়ে তার সাথে কথা বলা যায়নি।
সরেজমিন দেখা যায়, বিপুল পুলিশ অনুষ্ঠানস্থলে মোতায়েন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানের স্টেজ এবং প্যান্ডেল খুলে ফেলা হচ্ছে। এর আগেই অনুষ্ঠানস্থল ছেড়ে স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও দর্শনার্থীরা চলে যান।
বিদ্যালয়ের পাশে বাজারের কয়েকজন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যবসায়ী বলেন, সকাল ১০টায় স্কুলের কাছে কয়েকটি ককটেল বোমা ফাটায়। এতে আমরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ি। তবে কারা ককটেল ফাটিয়েছে তা জানি না।
মীর আব্দুল মজিদ উচ্চবিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি প্রফেসর ওমর নুর মোস্তফা মীর বলেন, আলোচনার মাধ্যমে ক্রিড়া অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এমপি মহোদয় দেশের বাইরে আছেন। তিনি ফিরলে ভালো করে অনুষ্ঠান করা হবে।
ডামুড্যা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মো: মাহবুবুর রহমান চৌধুরী বলেন, একই স্থানে বার্ষিক ক্রিড়া অনুষ্ঠান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কর্মিসভা আহ্বান করায় তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। আইনশৃঙ্খলার অবনতি হওয়ার আশঙ্কায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
ডামুড্যা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাস্টার কামাল উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, স্থানীয়ভাবে একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে। এ কারণে আমরা অনুষ্ঠান স্থলে যাই। যাতে অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা না ঘটে। বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির লোকজন ক্রিড়া অনুষ্ঠান বন্ধ রেখেছেন। এমপি সাহেব দেশের বাইরে আছেন। তিনি দেশে ফিরলে আরো সুন্দরভাবে বার্ষিক ক্রিড়া অনুষ্ঠান করা হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.