হিলারির ই-মেইল তদন্তে অপরাধমূলক কিছু পায়নি এফবিআই

নয়া দিগন্ত অনলাইন

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআই জানিয়েছে, তারা মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের ই-মেইল চালাচালিতে অপরাধমূলক কিছু পায়নি। রোববার এফবিআই প্রধান জেমস কোমি কংগ্রেসকে এ কথা বলেন। এর ফলে মাত্র দু'দিন বাকি থাকা নির্বাচনে হিলারির জন্য বেশ সুফল বয়ে আনবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কোমি বলেছেন, হিলারির বিরুদ্ধে মামলা না করার বিষয়ে চলতি বছরের জুলাইয়ে যে সুপারিশ করা হয়েছিল-এফবিআই তা থেকে সরে আসছে না। তিনি বলেন, ‘পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে হিলারি ক্লিনটনের কাছে আসা এবং তার পাঠানো সব ইমেইল আমরা তদন্ত করেছি। গত জুলাইয়ে হিলারি ক্লিনটনের বিষয়ে নেয়া সিদ্ধান্ত আমরা পরিবর্তন করছি না।’

হিলারির প্রচারণা শিবিরের যোগাযোগ পরিচালক জেনিফার পালমিয়েরি এ সিদ্ধান্ত স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, ‘তদন্তে তিনি যা পেয়েছেন, তাতে আমরা খুশি এবং আমরা এ ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলাম যে, তিনি তদন্ত করে এটাই পাবেন। আমরা খুশি যে এ বিষয়ের একটি সুরাহা হয়েছে।’

গত ২৮ অক্টোবর জেমস কোমি বহুল প্রচারিত এক চিঠিতে আইনপ্রণেতাদের বলেছিলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে হিলারি সরকারি সার্ভারের বদলে ব্যক্তিগত সার্ভার ব্যবহারের সময় কোনো ‘গোপনীয়’ তথ্য চালাচালি করেছিলেন কি না, তা নিয়ে এফবিআই নতুন করে তদন্ত শুরু করতে যাচ্ছে। তিনি বলেছিলেন, ‘এফবিআইয়ের তদন্ত দল এ ব্যাপারে ২৪ ঘণ্টা কাজ করছে।’ হঠাৎ ফাটানো এফবিআইয়ের ওই বোমায় বেকায়দায় পড়েন হিলারি ক্লিনটন।

তবে আত্মবিশ্বাসী হিলারি জানিয়েছিলেন, যতই তদন্ত করা হোক, খারাপ কিছুই পাওয়া যাবে না। বরং ভোটের মাত্র ১০ দিন আগে এমন একটি সিদ্ধান্ত কেন নেওয়া হলো, তার ব্যাখ্যা চান এফবিআইয়ের কাছে।

একের পর এক যৌন হয়রানির অভিযোগের মুখে ডুবতে থাকা রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প এফবিআইয়ের সরবরাহ করা ওই নতুন রসদ লুফে নেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.