ঢাকা, শনিবার,৩০ মে ২০২০

রাজনীতি

হান্নান শাহর কফিনে বিএনপির শেষ শ্রদ্ধা, জানাজায় বিপুল সমাগম

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬,বৃহস্পতিবার, ২০:০১ | আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬,বৃহস্পতিবার, ২০:০৬


প্রিন্ট

শেষবারের মতো নেতা-কর্মী-সমর্থকদের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন বিএনপির সিনিয়র নেতা মরহুম আ স ম হান্নান শাহ।

আজ বৃহস্পতিবার নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে তার কফিনে দলের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। সেখানে অনুষ্ঠিত জানাজায় ঘটে বিপুল সমাগম।

আজ দুপুরে মরহুম নেতার কফিন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে পৌঁছালে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ শীর্ষ নেতৃবৃন্দ কফিনটি দলীয় পতাকা দিয়ে ঢেকে দিয়ে তার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানান।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে সিনিয়র নেতারা প্রথমে পুস্পস্তবক অর্পন করেন।

এর আগে কার্যালয়ের সামনের সড়কে অস্থায়ীভাবে কালো কাপড় দিয়ে তৈরি মঞ্চে বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামের সদস্য মরহুম নেতার নাম রাখা হয়।

এখানে বাদ জোহর অনুষ্ঠিত জানাজায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, তরিকুল ইসলাম, এম কে আনোয়ার, রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, আবদুল মঈন খান, আবদুল্লাহ আল নোমান, মোহাম্মদ শাহজাহান, গিয়াস কাদের চৌধুরী, আহমেদ আজম খান, শওকত মাহমুদ, খন্দকার মাহবুব হোসেন, শাহজাহান ওমর, আবদুস সালাম, গোলাম আকবর খন্দকার, আবদুল হালিম, কবির মুরাদ, ফজলুর রহমান, শাহজাদা মিয়া, খায়রুল কবির খোকন, ফজলুল হক মিলন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, এবিএম মোশাররফ হোসেন, কায়সার কামাল, আমিনুল হক, আব্দুস সালাম আজাদ, শরিফুল আলম, ডা. শাহাদাত হোসেন, শহিদুল ইসলাম বাবুল, আবদুল আউয়াল খান, কাদের গনি চৌধুরী, ২০ দলীয় জোটের নেতাদের মধ্যে সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, শফিউল আলম প্রধান, ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, মোস্তফা জামাল হায়দার, জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী, সাঈদ আহমেদ, খোন্দকার লুৎফর রহমান, গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, মুফতি মহিউদ্দিন ইকরাম, মুমতাফিজুর রহমান মোস্তফাসহ বিভিন্ন স্তরের কয়েক হাজার নেতা-কর্মী ও ব্যক্তিবর্গ অংশ নেন।

অঙ্গসংগঠন ও ঢাকা মহানগরের নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাইফুল আলম নীরব, মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, মাহবুবুল হাসান পিংকু, শফিউল বারী বাবু, হাসান মামুন, রাজীব আহসান, আকরামুল হাসান, মহানগর বিএনপির নেতা কাজী আবুল বাশার, ইউনুস মৃধা, এ জিএম শামসুল হক, আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার, আতিকুল ইসলাম মতিন, আনম সাইফুল ইসলাম, মীর আশরাফ আলী আজম, অ্যাডভোকেট খন্দকার জিল্লুর রহমান, মতিউর রহমান চেয়ারম্যান, আব্দুল লতিফ, জয়নাল আবেদিন রতন প্রমুখ।

জানাজার আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মরহুমের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, আ স ম হান্নান শাহ) শুধু একজন সৈনিক ছিলেন না, তিনি সত্যিকার অর্থে একজন গণতন্ত্রের সৈনিক ছিলেন। বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তার ভূমিকা চিরদিন স্মরণীয় থাকবে। বিশেষ করে বিএনপি ও বাংলাদেশ গণতন্ত্রের সংকটে পড়েছিলো ১/১১ অবৈধ সরকারের সময়ে, বিএনপির পক্ষে, বাংলাদেশের মানুষের পক্ষে, গণতন্ত্রের পক্ষে সাহসী ভুমিকা পালন করেছিলেন হান্নান শাহ। আজ তিনি আমাদের মাঝ থেকে চলে গেছেন। আমরা তার জন্য দোয়া চাই, আল্লাহ যেন তাকে বেহেশত নসিব করেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টায় ডিওএইচএস জামে মসজিদ, সাড়ে ১১টায় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় ও মহাখালীর গাউসুল আজম জামে মসজিদে হান্নান শাহের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

ডিওএইচএসের জানাজায় সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, এলডিপির চেয়ারম্যান অলি আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজ্জাম্মেল হক, সাবেক নির্বাচন কমিশনের সাখাওয়াত হোসেন, সাবেক পররাষ্ট্র সচিব শমসের মবিন চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন চৌধুরী, ড. ওসমান ফারুক, রুহুল আলম চৌধুরীসহ বিভিন্ন শ্রেনীর ব্যক্তিবর্গ ও অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তারা অংশ নেন।

এরপর সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় মরহুমের কফিন নিয়ে আসা হয়। সেখানে জাতীয় সংসদের পক্ষে চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, বিরোধী দলীয় নেতার পক্ষে নুরুল ইসলাম ও খালেদা জিয়ার পক্ষে দলের ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজউদ্দিন আহমেদ, আবদুল আউয়াল মিন্টু, শামসুজ্জামান দুদু, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, এলডিপির পক্ষে আবদুল করীম আব্বাসী ও শাহাদাত হোসেন সেলিম পৃথকভাবে পুস্পস্তবক অর্পন করে তার প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

এর আগে সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে বিএনপির মাহবুবুর রহমান, হাফিজউদ্দিন আহমেদ, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, বিরোধী দলের সাবেক চিফ হুইপ জয়নুল আবদীন ফারুক, আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য জাহিদ আহসান রাসেল, এনডিপির খোন্দকার গোলাম মুর্তজা, ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, মুসলিম লীগের এএইচএম কামারুজ্জামান, সাবেক হুইপ শহীদুল হক জামাল, সাবেক সংসদ সদস্য এবিএম আশরাফউদ্দিন নিজান, জয়নাল আবেদীন (ভিপি জয়নাল), নাজিম উদ্দিন আলম, নাজিম উদ্দিন আহমেদ, আবদুল মোমিন তালুকদার খোকা, সেলিম রেজা হাবিব, আবু নাসের রহমাতুল্লাহসহ বিভিন্ন দলের সংসদ সদস্য ও সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আগামীকাল শুক্রবার বাদ জুমা গ্রামের বাড়ি গাজীপুরের কাপাসিয়াতে হান্নান শাহর লাশ দাফন করা হবে, যে মাটিতে ৭৪ বছর আগে জন্ম হয়েছিলো তাঁর।

দাফনের আগে আগামীকাল আরো তিনটি জানাজা নামাজ হবে গাজীপুরে।

সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল-সিএমএইচের হিমঘর থেকে শুক্রবার সকালে সড়ক পথে গাজীপুরে নিয়ে সকাল ৯টায় জয়দেবপুর রাজবাড়ী মাঠে, সাড়ে ১০টায় কাপাসিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এবং জুমার পর বিকেল তিনটায় মরহুমের নিজ এলাকা চালা বাজার উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা হবে। এরপর ঘাগটিয়া গ্রামে বাবার করবের পাশেই তাকে দাফন করা হবে।

আ স ম হান্নান শাহের মৃত্যুতে গত মঙ্গলবার থেকে চারদিনে শোক পালন করছে বিএনপি। দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়েছে। পাশাপাশি উত্তোলন করা হয়েছে কালো পতাকা। আগামী শনিবার বাদ আসর নয়া পল্টনের কার্যালয়ে হান্নান শাহের স্মরণে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল হবে।

হান্নান শাহের ছোট ছেলে শাহ রিয়াজুল হান্নান জানিয়েছেন, শনিবার বাদ মাগরিব মহাখালী ডিওএইচএস জামে মসজিদে মরহুমের জন্য দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫