০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯, ১০ রজব ১৪৪৪
ads
`
নি ত্যো প ন্যা স

ক্লাসরুমে ক্ল্যাশ

-

পঞ্চাশ.

‘কিন্তু আপনি আত্মপ্রকাশ করে আপনার কথা সবাইকে খুলে বললেই তো হয়।’
‘অতটা সহজ নয় বাছা। সবাই তো আর তোর মতো সহজে আমাকে মেনে নেবে না। আমি মৃত বা গুম হয়ে থাকলে কিছু লোকের সুবিধে হয়। তাদের অসুবিধে ঘটলে তারা আমাকে সহজে ছেড়ে দেবে না। আর আমি এই অবস্থায় বের হলে আমাকে দানব বানিয়ে ওরা ফায়দা লুটবে। ঐহিত্যবাহী এই পুরাতন ভবন ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়ার জন্য আরো সহজ হবে। এই ভবন নিয়ে ষড়যন্ত্র চলছে জানিস? তোর অবশ্য জানার কথা না। আমি স্বাভাবিক হয়ে ফিরে এসে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত এই ভবনটাকে রক্ষার জন্য লড়তে পারব।’ এ´ম্যান ধরা গলায় বললেন।
সজীব দোটানায় পড়েছে। যারা আসছে তারা যদি সত্যিই তাকে উদ্ধার করতে আসে তাহলে কিভাবে সে তাদের সাথে না গিয়ে পারে! ওখানে হয়তো মাও থাকতে পারে। বাবা অবশ্য ঢাকার বাইরে। এত তাড়াতাড়ি আসতে পারবে না। আবার তাকে উদ্ধার করতে পারলে এক্সম্যান স্যারের খবরও বের করে ফেলতে পারবে। তখন স্যারের জীবন বিপন্ন হবে। বিপন্ন হবে এই স্কুল। কী করবে সে?
ধীরে ধীরে খুলে গেল ঘরের প্লাটফর্ম।
বেরিয়ে পড়ল সুড়ঙ্গ মুখ।
ওদিকে পায়ের শব্দ আরো এগিয়ে আসছে।
(চলবে)


আরো সংবাদ


premium cement