০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`
নি ত্যো প ন্যা স

ক্লাসরুমে ক্ল্যাশ

-

বাইশ.

কোনো দিকে তাকানোর মতো অবস্থাও নেই। ক্লাস টেনের ছাত্ররা কয়েক দিন পরে স্কুল থেকে চলে যাবে বলে তাদের উপরে টিচারদের নিয়ন্ত্রণ কম। আর সুযোগ নিয়ে শেষ পিরিয়ড না করেই কামাল, কানন, নয়ন ক্লাস ফাঁকি দিয়ে বেরিয়ে এসেছে। ইচ্ছে নতুন শেখা বিশেষ কিছু টানা।
এ জন্য উপযুক্ত স্থান কনস্ট্রাকশন বিল্ডিংয়ের দিকটাতেই। ওরা ইট কাঠ বাঁশের ফাঁকফোকর গলিয়ে ওদিক দিয়েই যেতে লাগল। উপরে কাজ করা কয়েকজন শ্রমিক চেঁচিয়ে ওদেরকে ওদিকে যেতে নিষেধ করল। কিন্তু ওরা মানে না।
আর তখনই দুর্ঘটনাটা ঘটল।
উপর থেকে এক ফালি বাঁশ, যার মাথায় তারকাটা পোতা, এক শ্রমিকের হাত থেকে খসে নিচে পড়ল। আর পড়বি পড় একেবারে কামালের মাথার ওপর। নয়ন ওকে হ্যাঁচকা টান দিয়ে সরিয়ে না নিয়ে এলে একেবারে মাথার উপরেই পড়ত। মাথা বাঁচলেও কানের পাশ ঘেঁষে বাম কাঁধে এসে তারকাটাশুদ্ধ বাঁশের ফালিটা লেগে গেল।
দড়াম করে পড়ে গেল কামাল। পড়েই অজ্ঞান। রক্তে ভেসে যেতে লাগল তার মাথার দিকটা।
মুহূর্তেই খবর হয়ে গেল গোটা স্কুলে। কামালকে ধরাধরি করে নিয়ে নয়ন আর কানন এলো অফিস রুমের সামনে। পরিস্থিতি খারাপ বুঝে হেডস্যার স্থানীয় হাসপাতালে ফোন করে দিলেন। দশ মিনিটের মধ্যে পোঁ পোঁ শব্দ করে অ্যাম্বুলেন্স চলে এলো। অচেতন কামালকে তোলা হলো অ্যাম্বুলেন্সে। (চলবে)

 


আরো সংবাদ


premium cement