০৮ এপ্রিল ২০২০

দুই গোয়েন্দার অভিযান অভিযান

-

চব্বিশ.

ফোন করল টিনা। মরক্কোরই একটা শহর মারাকেশ। দেশের অনেক গভীরে, মরুভূমির মধ্যে। বাবার খোঁজ-খবর নিয়ে, নিজে ভালো আছে জানানোর পর ছেলেদের সঙ্গে পরিচয় করাল টিনা। এক এক করে রিসিভার কানে ঠেকিয়ে ‘হ্যালো’ বলল রেজা, সুজা, নেড ও ডোনাল্ড।
বাবাকে টিকিট জালিয়াতদের কথা বলল টিনা। সাবধান থাকতে বললেন ডক্টর দিশাউ। তাঁর অনুমান, যে কোনো কারণেই হোক ছেলেদের পিছু নিয়েছে জালিয়াতরা। ওদের পরিচয় জেনে ফেলেছে। এই হোটেলে আর ওদের থাকাটা ঠিক হবে না।
চিন্তিত ভঙ্গিতে মাথা ঝাঁকাল রেজা। ‘টিনা, তোমার বাবা ঠিকই বলেছেন। মনে হচ্ছে সত্যিই এ হোটেলে থাকাটা আর ঠিক হবে না আমাদের। আগে থেকেই ওরা আমাদের চেনে। তা ছাড়া আজ ওদের আস্তানায় গিয়ে হানা দিয়েছি। সহজে ছাড়বে না আমাদের। এখনি বেরিয়ে যাওয়া উচিত।’
‘কিন্তু এখন তো আর রুম ছাড়ার সময় নেই,’ ডোনাল্ড বলল।
‘রুম ছাড়ার কথা বলতে যাবো না। ম্যানেজারকেও জানতে দেবো না আমরা বেরিয়ে গেছি।’
কাছেই একটা ছোট হোটেলের খোঁজ জানে টিনা। রেল স্টেশনে যাওয়ার পথে পড়ে। ওই স্টেশন থেকেই আগামী দিন মারাকেশ রওনা হবে ওরা। যার যার মালপত্র নিয়ে এক এক করে হোটেলের পেছন দিয়ে বেরিয়ে পড়ল ওরা। বিল শোধ করা আছে। ওরা ঘরে নেই দেখে অবাক হলেও পুলিশে খবর দেবে না ম্যানেজার। টিনার পরিচিত ছোট হোটেলটায় এসে দুটো ডাবল-বেডের বড় একটা রুম নিলো। দু’জন দু’জন করে থাকতে পারবে।
টিনা বলল, ‘আমি ফুপুর বাড়িতে চলে যাচ্ছি। সকাল ১০টায় চলে আসব।’
(চলবে)

 


আরো সংবাদ

সেই প্রিয়া সাহা করোনায় আক্রান্ত! (৫০৮৩৩)নিজ এলাকায় ত্রাণ দিয়ে ঢাকায় ফিরে করোনায় মৃত্যু, আতঙ্কে স্থানীয়রা (৪৪৬১১)বেওয়ারিশের মতো সারা রাত সঙ্গীতশিল্পীর লাশ পড়েছিল রাস্তায় (২৬৭২১)দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর (২০২৫৬)করোনা ছড়ানোয় চীনকে যে ভয়ঙ্কর শাস্তি দেয়ার দাবি উঠল জাতিসংঘে (১৬৩৮৯)কাশ্মিরে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে নিহত ভারতীয় দুর্ধর্ষ কমান্ডো দলের সব সদস্য (১৫৫২৩)রোজার ঈদের ছুটি পর্যন্ত বন্ধ হচ্ছে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (১৩০৭৯)করোনার লক্ষণ নিয়ে নিজের বাড়িতে মরে পড়ে আছে ব্যবসায়ী, এগিয়ে আসছে না কেউ (১২৮০৫)ঢাকায় নতুন করে ৯টি এলাকা লকডাউন (১০৬৪৩)সবচেয়ে ভয়াবহ দিন আজ : মৃত্যু ৫, আক্রান্ত ৪১ (১০০৬১)