১৬ জানুয়ারি ২০২১
`

আ র বে র রূ প ক থাসভাকবি বানর

রূপান্তর : শেখ আবদুল্লাহ নূর
-

গতদিনের পর
আসলে তিনি একজন কবি। কবিতা লিখতেই এমন নির্জন জায়গা খুঁজে ফিরছিলেন এতক্ষণ। খাতা-কলম নিয়ে তিনি কবিতা লিখছেন। একাগ্র মন তার। আশপাশে কোনো খেয়াল নেই। সবেমাত্র দুই-চার চরণ লিখেছেন, এমন সময় বটগাছ থেকে নেমে এলো এক দৈত্য। বীভৎস চেহারা তার। কর্কশ কণ্ঠে দৈত্যটি জিজ্ঞেস করেÑ কে তুমি? আমার এখানে কী করছ?
দৈত্যের কণ্ঠস্বরে লেখায় ছেদ পড়ে কবির। তিনি চোখ তুলে তাকান। এমন ভয়ঙ্কর দৈত্য! দেখে ভয় পেয়ে যান কবি। কী বিদঘুটে চেহারা! বড় বড় সুচালো দাঁত। বড় বড় চোখ। যেন আগুনের গোলা বেরিয়ে আসছে। দৈত্যটি যখন কথা বলে, এই দুপুর রোদেও তার মুখ থেকে আগুন বেরোয়। কবি প্রচণ্ড রকমে ভয় পেয়ে যান। ভয়ে ভয়ে বলেনÑ আমি এক নিরীহ কবি, হে মান্যবর। কবিতা লেখার জন্য এমন এক নির্জন জায়গায় এসে বসেছি। কোনো অসৎ উদ্দেশ্য নেই আমার। (চলবে)

 



আরো সংবাদ