০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ১৫ রজব ১৪৪৪
ads
`

মোস্তাফিজের যেই কথা তাতিয়ে দিয়েছে মিরাজকে

মোস্তাফিজের যেই কথা তাতিয়ে দিয়েছে মিরাজকে - ছবি : নয়া দিগন্ত

খাদের শেষ কিনারে থেকেও ভারতের বিপক্ষে অবিশ্বাস্য জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। অবিস্মরণীয় এই জয়ে সব আলো কেড়ে নিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। যোগ্য সহচার্য দিয়েও আড়ালে পড়ে গিয়েছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। শেষ উইকেট জুটিতে দু’জনের হার না মানা ৪২ বলে ৫১ রানের জুটিতেই হারতে বসা ম্যাচে জয়ের স্বাদ পায় বাংলাদেশ।

আড়ালে পড়ে গেলেও মোস্তাফিজকে ভুলেননি জয়ের নায়ক মেহেদী মিরাজ। জয়ের বড় কৃতিত্বই দিলেন বাঁ হাতি এই পেসারকে। মোস্তাফিজের বলা একটা কথাই নাকি জয়ের আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছিল মিরাজের বুকে। যেখানে মোস্তাফিজ সাহসী যোদ্ধার মতো বলেছিলেন, গায়ে আঘাত লাগলেও আউট হবেন না তিনি।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এমনই দাবি করলেন মিরাজ। তিনি বলেন, ‘সবচেয়ে বড় কথা মুস্তাফিজ খুব ভালো সাপোর্ট দিয়েছেন। তিনি খুব আত্মবিশ্বাসী ছিল। একটা কথা আমাকে বার বার বলছিলেন, আমাকে নিয়ে টেনশন করার কিছু নেই। আমি ঠেকিয়ে দিচ্ছি। আমি আউট হবো না, গায়ে বল লাগলেও সমস্যা নেই। তার এমন বিশ্বাস দেখে আমার খুব ভালো লেগেছে। আমারও আত্মবিশ্বাস বেড়ে গেছে।’

তবে শুরুতে জয়ের পরিকল্পনাটা মোস্তাফিজকে নিয়ে ছিল না মিরাজের। আফিফ আউট হওয়ার পর হাসান মাহমুদ ও এবাদতকেও ঢাল বানাতে চেয়েছিলেন মিরাজ। মিরাজ বলেন, ‘আমি যেভাবে চিন্তা করছিলাম, হয়তো এবাদতকে নিয়ে ১৫ রান করবো, হাসানকে নিয়ে ২০ রান করবো। আর মুস্তাফিজকে নিয়ে শেষে ১৫-২০ রান যা লাগে, করবো। এভাবেই আমার চিন্তা ছিল।’

তবে দ্রুত হাসান মাহমুদ ও এবাদত আউট হয়ে যাওয়ায় পরিকল্পনায় বদল আনেন মিরাজ। মোস্তাফিজকে নিয়েই বাঁচা-মরার লড়াই চালিয়ে যান। এই প্রসঙ্গে মিরাজের ভাষ্য, ‘পরপর দুই উইকেট পড়ে গেছে। শেষ উইকেট যখন, তখন তো ডু অর ডাই। মানে হারানোর কিছু নাই। তখন তো ঝুঁকি নিতেই হবে। ঝুঁকিটা নিয়েছি। তবে মোস্তাফিজের কথা খুব ভালো লেগেছে, ওর কথা কানে বাজছিল তখন নিজের মধ্যে নিজের বিশ্বাস তৈরি হয়েছে।’


আরো সংবাদ


premium cement