৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

আরব আমিরাতকে উড়িয়ে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ

আরব আমিরাতকে উড়িয়ে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ - ছবি : সংগৃহীত

আরব আমিরাতের বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে আরব আমিরাতকে হারিয়েছে ৩২ রানে। ২৯ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলার পরও আরব আমিরাত সময়ের সাথে সাথে চোখ রাঙালেও বলের সাথে রানের দৌড়ে আর পেরে উঠেনি।

দুবাইয়ে মঙ্গলবারও টস ভাগ্য সায় দেয়নি। টসে হেরে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও আগে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ। একাদশ দুই পরিবর্তন নিয়ে মুস্তাফিজ ও শরিফুলের পরিবর্তে তাসকিন ও এবাদত এসেছিলেন একাদশে।

ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের উদ্বোধনীতে ভরসা সাব্বির-মিরাজ। ফ্রি হিটে দারুণ একটা ছক্কা হাকিয়ে প্রত্যাবর্তনের আশা দেখালেও পরের ওভারেই আশা নিরাশায় পরিনত করে সাব্বির ফিরেন ৯ বলে ১২ রানে। তাকে ঘিরে উঠা সমালোচনা যেন দিলেন আরো উগড়ে। বিশ্বকাপেও তার থাকা নিয়েও শঙ্কা দেখা দিল এর ফলে।

সাব্বির ফিরে গেলেও মিরাজ-লিটনের দায়িত্বশীল জুটিতে পাওয়ার প্লেতে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে যোগ হয় ৪৮ রান। ভালো শুরু করে আবারো লিটন ফিরেছেন সেট হয়ে। এই অভ্যেসটা যে তার কবে বদলাবে! তারপরও ১০ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে যোগ হয় ৭৮ রান।

আয়ান আফজালকে দারুণ ছক্কা হাকিয়ে ১১তম ওভার শুরু করলেও এক বল পরেই আফিফ ফিরে যান। ১০ বলে ১৮ রানেই আজ থেমে যেতে হয় তাকে। উইকেট হারালেও রানের গতি কমতে দেননি মিরাজ-মোসাদ্দেক। তবে আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তের বলি হয়ে মিরাজকে ফিরতে হয় ১৫তম ওভারে। আউট হবার আগে খেলেন ৫ চারে ৩৭ বলে ৪৬ রানের ইনিংস।

মিরাজ ফেরার পর রানের গতি কিছুটা কমে আসে। মোসাদ্দেকও সাজঘরে ফিরেন ২১ বলে ২৭ রান করে। ইয়াসির রাব্বি আর অধিনায়ক সোহান মাঠে থাকলেও রানের গতি বাড়াতে পারেননি তারা। ১৫ ওভারে ১২৬ থেকে পরের ৪ ওভারে মাত্র ২৯ রান আসে স্কোরবোর্ডে। শেষ বলে নুরুল হাসান সোহানের ছক্কাটা বাদ দিলে, আর তেমন কিছুই ছিল না শেষ ৫ ওভারে। নির্ধারিত ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১৬৯। ১০ বলে ১৯ রানে অপরাজিত সোহান, ১৩ বলে ২১ করেছেন ইয়াসির।

১৭০ রানের লক্ষ্যে নেমে শুরুতেই আরব আমিরাতকে চেপে ধরে বাংলাদেশী বোলাররা। তাসকিন আহমেদের গতিতে হয়ে যায় ছন্নছাড়া। এর মাঝে চিরাগ সুরিকে ফেরান নাসুম। পঞ্চম ওভারের শেষ দুই বলে দুই ছক্কা হাকিয়ে ধুকতে থাকা আরব আমিরাত যখন খানিকটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ছাড়বে, তখনই তাসকিনের আঘাত তাদের দূর্গে। পাওয়ার প্লেতে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ২৮ করে আরব আমিরাত।

পাওয়ার প্লের পরে প্রথম ওভারে মোসাদ্দেককে বোলিংয়ে আনেন অধিনায়ক নুরুল হাসান। এসেই জোড়া আঘাত মোসাদ্দেকের। টানা দুই বলে ফেরান আরইয়ান লাকড়া আর ভৃত্য আরবিন্দকে। পরের ওভারে প্রায় সাড়ে ৩ বছর পর সাব্বির ফিরেছেন বল হাতে। ১০ ওভার শেষে আরব আমিরাত সংগ্রহ করে ৫২ রান। বাকি ১০ ওভারে তখনো প্রয়োজন ১১৮ রান।

তবে এরপরই নিয়ন্ত্রণ হারায় বোলাররা। শুরুতে ব্যাকরণ মেনে ব্যাট করলেও সময়ের সাথে সাথে আগ্রাসী হয়ে উঠে বাসিল হামিদ ও অধিনায়ক রিজওয়ানের জুটি। ৭২ বলে ৯০ রান আসে এই জুটি থেকে। অবশেষে ইবাদতের বলে বাসিল হামিদের বিদায়ে এই জুটি ভাঙে। তবে শেষ পর্যন্ত খেলে আসেন অধিনায়ক রিজওয়ান। তিনি অপরাজিত থাকেন ৩৬ বলে ৫১ রানে। আরব আমিরাতের ইনিংস থামে ৫ উইকেট ১৩৭ রানে।

আজও বল হাতে সব উজ্জ্বলদের ভিড়ে খানিকটা যেন ধূসরতা আটকে আছে সাইফুদ্দীনে। গত ম্যাচে ৪০ রানে ছিলেন উইকেট শূন্য। আজ প্রথম ওভারে মাত্র ৩ রান দিলেও পরের দুই ওভারে দেন ২১ রান।


আরো সংবাদ


premium cement
মরা-বাঁচা লড়াইয়ে প্রথমার্ধ শেষে গোলশূন্য ডেনমার্ক-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ সোহরাওয়ার্দী উদ্যান কেনো বিএনপির অপছন্দ : ওবায়দুল কাদের ফ্রান্স-তিউনিসিয়া ম্যাচ গোলশূন্য ড্তে শেষ প্রথমার্ধ গণসমাবেশের লিফলেট বিতরণকালে গাজীপুরে বিএনপির নেতাকর্মী গ্রেফতার ১০ দফা দাবিতে জয়দেবপুর রেল স্টেশনে বিক্ষোভ দুর্নীতির অভিযোগ, বেনাপোল সোনালী ব্যাংকের ৩ কর্মকর্তা বরখাস্ত মির্জাপুরে ইটভাটা মালিককে কোটি টাকা জরিমানান ফের ৩ দিন বিমানবন্দর সড়ক এড়িয়ে চলার পরামর্শ রাজশাহী বিভাগীয় গণসমাবেশে আসতে শুরু করেছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা ভারতের রান পাহাড়ে চাপা পড়েছে বাংলাদেশ ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে ‘সাড়ে ৩ মাস’ ট্রেন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত

সকল