০২ জুলাই ২০২২
`

রাশিয়া সফর : ইমরান খানকে সমর্থন করলেন বিলাওয়াল

ইমরান খান ও বিলাওয়াল ভুট্টো - ছবি : সংগৃহীত

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের রাশিয়া সফরকে সমর্থন করে বলেছেন যে তার ওই সফর ছিল তার পররাষ্ট্রনীতির অংশ।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার পদচ্যুতির জন্য বারবার মার্কিন সরকারকে দায়ী করবেন। ইমরান খান বলছেন যে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর সময় তিনি রাশিয়া সফর করায় এবং স্বাধীন পররাষ্ট্রনীতি অনুসরণ করায় যুক্তরাষ্ট্র অনাস্থা প্রস্তাবের মাধ্যমে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করেছে।

নিউ ইয়র্কে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের রাশিয়া সফর নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে বিলাওয়াল বলেন, 'সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের রাশিয়া সফরের ব্যাপারে আমি তাকে পুরোপুরি সমর্থন করব। পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী তার পররাষ্ট্রনীতির অংশ হিসেবে ওই সফর করেছিলেন।'

বিলাওয়াল ভুট্টো বলেন, কেউ তখন জানত না যে রাশিয়া-ইউক্রেন সঙ্ঘাত হতে যাচ্ছে।
তিনি বলেন, 'আমি বিশ্বাস করি, নির্দোষ একটি কাজের জন্য পাকিস্তানকে শাস্তি দেয়া খুবই অন্যায়। অবশ্যই পাকিস্তান সুস্পষ্টভাবে জানিয়েছে যে সে শক্তি ব্যবহার না করার জাতিসঙ্ঘ নীতিকে সমর্থন করে।'

বিলাওয়াল আরো বলেন, 'আমরা কোনোভাবেই এই প্রেক্ষাপটে কোনো আগ্রাসীর পক্ষ অবলম্বন করি না।' তিনি বলেন, পাকিস্তানের নিজের সমস্যা রয়েছে, সে নিজে আফগানিস্তানে এক দশকের সঙ্ঘাত দেখেছে।

তিনি বলেন, পাকিস্তান এখন এই যুদ্ধে ক্লান্ত হয়ে পড়েছে। কারণ এই যুদ্ধ তার সন্তান, নেতৃত্ব, পুরুষ ও নারীদের কোরবানি করেছে। ফলে আমরা সংলাপ ও কূটনীতির মাধ্যমে সব সমস্যার সমাধান চাই।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরেক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ইমরান খানের উচিত দায়িত্বশীল বিরোধীদলের ভূমিকা পালন করা। তিনি ইমরানের 'অগণতান্ত্রিক ও অসাংবিধানিক নীতির' তীব্র সমালোচনাও করেন।

তিনি বলেন, ইমরান খান গণতান্ত্রিক, সাংবিধানিক ও পার্লামেন্টারি রাজনীতি করছেন না। তিনি চরমপন্থী রাজনীতির দিকে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, বিরোধী দলের বিক্ষোভ করার অধিকার আছে। কিন্তু ইমরান খান রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান ও প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনছেন।

পাকিস্তানে বিলাসী পণ্য আমদানি নিষিদ্ধ
ভয়াবহ অর্থনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে পাকিস্তান সরকার সব ধরনের বিলাসী পণ্য এবং অত্যাবশ্যক নয়- এমন সবকিছু আমদানি নিষিদ্ধ করেছে। তারা আশা করছে, এতে মাসে ছয় বিলিয়ন ডলার রক্ষা পাবে।

পাকিস্তান মুসলিম লিগ-এনের নেতৃত্বাধীন সরকার বৃহস্পতিবার এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব বলেন, ফেডারেল সরকার বিলাসসামগ্রী এবং অত্যাবশ্যক নয়, এমন পণ্য আমদানির ওপর পূর্ণাঙ্গ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

তিনি বলেন, এখন জরুরি পরিস্থিতি চলছে। পাকিস্তানিদের অর্থনৈতিক পরিকল্পনার আলোকে আত্মত্যাগ করতে হবে। এতে বৈদেশিক রিজার্ভের ওপর দ্রুত প্রভাব ফেলবে। নিষেধাজ্ঞার ফলে মাসে ছয় বিলিয়ন ডলার রক্ষা পাবে।

মরিয়ম আওরঙ্গজেব বলেন, সরকার আমদানি হ্রাস করার দিকে নজর দিয়েছে। এ কারণে রফতানিমুখী নীতি গ্রহণ করেছে। এটা স্থানীয় শিল্প ও উৎপাদনকারীদের সহায়তা করবে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, অর্থনীতি স্থিতিশীল করতে শাহবাজ শরিফ দিনরাত কাজ করছেন।

তিনি বলেন, যেসব পণ্য আমদানি করার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে সেগুলোর মধ্যে রয়েছে সাজসজ্জার আইটেম, বিলাসবহুল গাড়ি।

সূত্র : জিও নিউজ, ডন ও নিউজ ইন্টারন্যাশনাল

 


আরো সংবাদ


premium cement
সৌদি আরবে আরো ৩ বাংলাদেশী হজযাত্রীর মৃত্যু চট্টগ্রামে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে জামায়াতের গৃহ ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ তাহিরপুরে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও বন্যার্তদের মধ্যে ভারতীয় হাইকমিশনের ত্রাণ বিতরণ কওমি মাদরাসা নিয়ে ফখরুল ইমাম এমপির বক্তব্যের প্রতিবাদ শিবিরের ফুলগাজীতে বিএনপির ত্রাণ বিতরণের প্রস্তুতি সভায় আ’লীগের হামলায় আহত ৩০ চট্টগ্রামে ৫০ চোরাই মোবাইলসহ পাকড়াও ৪ চোর হামলার ভয়ে বড়থলির ২৩টি পরিবার বান্দরবানে আশ্রয় নিয়েছে হবিগঞ্জে মোবাইল কেনাবেচা নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১ চট্টগ্রামে গরুর বাজার দখলের চেষ্টা অস্ত্রসহ ৩ ছাত্রলীগ ক্যাডার গ্রেফতার বগুড়ায় আবাসিক হোটেলে অসামাজিক কাজ বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন ডিএসসিসি পশুর হাটে থাকবে ১১ ভেটেরিনারি মেডিক্যাল টিম

সকল