২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`

ঢাকা টেস্ট : ২য় দিনের খেলা শুরু

ঢাকা টেস্ট : ২য় দিনের খেলা শুরু -

একবার বৃষ্টি নামে তো আরেকবার রোদ এরপর আবারো মেঘে ঢেকে যাচ্ছে আকাশ। এভাবেই ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিন চলাছিল। অবশেষে মাঠে গড়ায় বল। দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু হয় দুপুর ১২টা ৫০ মিনিটে।

রোববার খেলা হবে ৬৬ ওভার। ১২টা ৫০ মিনিট থেকে শুরু হওয়া এই সেশনে খেলা হবে ২০ মিনিট। ১টা ১০ মিনিটে শেষ হবে সেশন। বিশ মিনিট বিরতির পর দেড়টায় আবার মাঠে নামবে দুই দল। এরপর চার ঘণ্টা দীর্ঘ এক সেশনে শেষ হবে দিনের খেলা।

শনিবার প্রথম সেশনে ব্যাকফুটে থাকা পাকিস্তান ঘুরে দাঁড়ায়। দ্বিতীয় সেশনে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন বাবর আজম। ব্যাটে আছেন ৬৮ রানে। অন্য পাশে আজহার আলি ব্যাট করছেন ৫১ রানে।

শনিবার ২য় সেশনে খেলা হয় ২৬ ওভার। এ সময় পাকিস্তান সংগ্রহ করে ৮৩ রান। প্রথম সেশনে ৩১ ওভার খেলে পাকিস্তানের সংগ্রহ ছিল ৭৮ রান।

এর আগে শনিবার শুরুতে দুর্বার গতিতে রান তুলছিল পাকিস্তান। ওপেনিং জুটিতে ১৮ ওভারে ৫৭ রান তুলে নেন আবিদ আলি ও আবদুল্লাহ শফিক। এর পরের ওভারেই বোল্ড করে শফিককে সাজঘরে ফেরান তাইজুল। পরে ২৫তম ওভারে আরেক ওপেনার আবিদ আলিকেও সাজঘরে ফেরান তাইজুল।

এর আগে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে পাকিস্তানের কাছে টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে যায় বাংলাদেশ। পাকিস্তান টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়। ম্যাচটি শুরু হয় সকাল ১০টায়।

এ ম্যাচে পাকিস্তান জয় পেলে ঘরের মাঠে হোয়াইটওয়াশ হবে বাংলাদেশ।

প্রথম টেস্টে ৪৪ রানের লিড পেয়েও ৮ উইকেটে ম্যাচ হারতে হয় বাংলাদেশকে।

চট্টগ্রামে ম্যাচের প্রথম ইনিংস টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পান লিটন দাস। মুশফিকুর রহিম করেন ৯১ রান। দু’জনের ব্যাটিংয়ের সাথে বাঁ-হাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম ১১৬ রানের বিনিময়ে সাত উইকেট শিকার করেন। কিন্তু প্রথম ইনিংসে তাদের ব্যক্তিগত পারফরমেন্স দলের কোনো উপকারে আসেনি। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যটাররা ব্যর্থ হওয়ায় সহজ জয় পায় পাকিস্তান।

প্রথম ইনিংসে লিড পেলেও ম্যাচ জয়ের আত্মবিশ্বাসে ঘাটতি ছিল বাংলাদেশের। মুশফিক-লিটন ও তাইজুল ছাড়া স্বাগতিক দলের ব্যাটিং-বোলিংয়ে ঘাটতি ছিলো চোখে পড়ার মতো।

গতকাল মোমিনুল জানান, বাংলাদেশ যদি সবকিছু ঠিকঠাক করতে না পারে, তাহলে টেস্ট সিরিজে তাদের কামব্যাক করার কোনো উপায় নেই।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ১০টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। সবগুলোই জিতেছে পাকিস্তান। এর মধ্যে ১টি টেস্ট ড্র হয়। সর্বশেষ ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সফরে দ্বিপাক্ষীক সিরিজে একটি টেস্ট ড্র হয়েছিল।

বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত ১২২টি টেস্ট খেলেছে, জিতেছে ১৪টিতে, হেরেছে ৯২টিতে। এর মধ্যে ৪৩টি ম্যাচে ইনিংস ব্যবধানে হারে। বাকি ১৬ টেস্ট ড্র করেছে।


আরো সংবাদ


premium cement