১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
`
বিশ্বকাপের বাজে প্রস্তুতি

আয়ারল্যান্ডের সাথেও পারলো না বাংলাদেশ

আগের ম্যাচে শূন্য মারা মুশি এই ম্যাচে করেন ৪ বলে ৪ রান। - ছবি : সংগৃহীত

শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে হার তাও মেনে নেয়া গিয়েছিল। তাই বলে আয়ারল্যান্ড? বিশ্বকাপের আগে শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে অন্তত একটি জয় আশা করেছিল সবাই। প্রতিপক্ষ যেখানে ছিল আয়ারল্যান্ড। কিন্তু আইরিশদের বিরুদ্ধেও ভরাডুবি টাইগারদের।

বৃহস্পতিবার আবুধাবিতে দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের কাছে ৩৩ রানে হেরেছে লিটন শিবির।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে প্রস্তুতিটা যাচ্ছে তাই হলো টাইগারদের। ওমান এ দলের বিরুদ্ধে আনঅফিসিয়াল একটি জয়ের অনুপ্রেরণা নিয়ে বাছাই পর্বের অপেক্ষায় মাহমুদউল্লাহরা। মিরপুরের উইকেট ও আমিরাতের উইকেটের মধ্যে যে আকাশ-পাতাল তফাত, তা ধীরে ধীরে বুঝতে শুরু করেছে বাংলাদেশ।

টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে ৩ উইকেটে ১৭৭ রান করে আয়ারল্যান্ড। জবাবে বাংলাদেশ করতে পারে ২০ ওভারে ১৪৪ রান, অল আউট।

১৭৮ রানের বড় টার্গেটে খেলতে নেমে বাংলাদেশের শুরুটা বরাবরের মতো যাচ্ছেতাই। দলীয় ৫ রানে বিদায় নেন দুই ওপেনার। তিন বলে এক রান করে ফেরেন মাহমুদউল্লাহর পরিবর্তে দলকে নেতৃত্ব দেয়া লিটন দাস। জুশুয়ার বলে বোল্ড তিনি।

টিকতে পারেননি নাঈম শেখও। ৪ বলে ৩ রান করে ক্রেইগের বলে সিমির হাতে ক্যাচ দেন তিনি। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ ৩৪ রান করা সৌম্য এদিনও ছিল অনেকটা সাবলিল। বিপর্যয় রোধ করে রানের চাকা সচল রাখার চেষ্টা করেন তিনি।

কিন্তু তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পারেননি মুশফিকুর রহিম। আগের ম্যাচে শূন্য মারা মুশি এই ম্যাচে করেন ৪ বলে ৪ রান। বোল্ড হন ক্রেইগের বলে। আফিফ হোসেন ধ্রুব ঝলক দেখানোর চেষ্টা করেছেন। কিন্তু থিতু হতে পারেননি। ১৬ বলে ১ চারে ১৭ রান করেন তিনি।

এদিনও ভালো খেলছিলেন সৌম্য সরকার। ৩০ বলে ৩৭ রান করেন তিনি। দুটি ছক্কা ও এক চারে ভালো ইনিংসের পর রান আউট তিনি। যাকে খুব হার্ড হিটার ভাবা হচ্ছিল সম্প্রতি, সেই শামীম হোসেন পাটোয়ারিও শেষ দিকে পারেননি কিছু করতে। ৭ বল খেলে মাত্র ১ রান করে বোল্ড হন সিমির বলে।

মাহেদী হাসান ১২ বলে ১ চারে করেন ৯ রান। ২ বলে ০ রানে লিটলের বলে বোল্ড হন স্পিনার নাসুম। এদিন বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ইনিংস নূরুল হাসান সোহানের। ২৪ বলে ৬টি চারে ৩৮ রান করেন নুরুল হাসান। ১১ বলে ১৪ রানে তাসকিন থাকেন অপরাজিত। ৭ বলে ৭ রান করে ইনিংসের শেষ বলে বোল্ড হন মোস্তাফিজুর রহমান।

আয়ারল্যান্ডের হয়ে বল হাতে ৩ উইকেট নেন অ্যাডায়ার। দুটি করে উইকেট নেন ইয়ং ও লিটল। একটি করে উইকেট পান সিমি সিং ও হোয়াইট।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে আয়ারল্যান্ডের হয়ে ৫০ বলে ৮৮ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন গ্যারেথ ডিলানি। তার ইনিংসে ছিল ৮টি ছক্কা ও ৩টি চারের মার। অধিনায়ক আন্দ্রে বালবার্নি ২২ বলে ২৫ রান করে বিদায় নেন তাসকিনের বলে বোল্ড হয়ে। ১৬ বলে ২২ রান করেন ওপেনার পল স্টার্লিং। তিনি বোল্ড নাসুম আহমেদ। ২৩ বলে ২৩ রান করে অপরাজিত থাকেন হ্যারি টেক্টর। শেষ ১০ ওভারে ৯৭ রান যোগ করে আয়ারল্যান্ড, শেষ ৪ ওভারে ৫৩।

৪ ওভারে ৪০ রান দিয়ে উইকেটশূন্য মোস্তাফিজ। আরেক বাঁহাতি পেসার শরিফুল দেন ৪১ রান। ৩ ওভারে ৩৩ রান দিয়ে নাসুম পান একটি উইকেট। ৪ ওভারে ২৬ রান দিয়ে দুটি উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ। এই পেসারের কোটা ১০ ওভারের মধ্যেই শেষ করিয়ে ফেলেন অধিনায়ক। মেহেদি হাসান ৩ ওভারে দেন কেবল ১৫ রান। নবম ওভারের পর তিনি আর বল হাতে পাননি। সৌম্য সরকার ২ ওভারে দেন ১৩ রান।



আরো সংবাদ