০৩ আগস্ট ২০২১
`

সাকিবকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিক্রিয়ার ঝড়

সাকিবকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিক্রিয়ার ঝড় - ছবি- সংগৃহীত

ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে আবাহনীর বিপক্ষে ৩১ রানে জয় পেয়েছে মোহামেডান। তবে শুক্রবারের সেই ম্যাচের ফলাফলকে ছাপিয়ে গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে খবরের শিরোনামে মোহামেডান অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ‘আপত্তিকর’ কর্মকাণ্ড। এ দিন ব্যাট হাতে ৩৭ রান করলেও বল হাতে মহাবিতর্কের জন্ম দিয়েছেন সাকিব।

আবাহনীর অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের এলবিডব্লিউয়ের আবেদনে আম্পায়ার সাড়া না দেয়ায় মুহূর্তেই ক্ষেপে যান বিভিন্ন সময়ে আলোচিত-সমালোচিত সাকিব আল হাসান।

প্রথমে লাথি মেরে উইকেট ভাঙেন। এরপর আম্পায়ারের দিকে তেড়ে গিয়ে তর্ক করেন। এমনকি পরে উইকেট ওপড়ে নিয়ে আছাড়ও মেরেছেন তিনি। এখানেই ক্ষান্ত হননি এই তারকা ক্রিকেটার। আবাহনীর ড্রেসিংরুমের দিকে অশালীন অঙ্গভঙ্গি করে তাদের কোচ খালেদ মাহমুদের দিকে তেড়ে যান সাকিব। এসব ঘটনার ভিডিও মুহূর্তেই ফেসবুকে ভাইরাল। সাকিবকাণ্ড নিয়ে এখন ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় চলছে। দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছেন দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা।

অনেকে সাকিবকে ‘বেয়াদব’ আখ্যা দিয়ে তুলোধোনা করেছেন। কেউ আবার দুর্নীতির বিরুদ্ধে সাকিব রুখে দাঁড়িয়েছেন বলেও পোস্ট দিয়েছেন।

শুক্রবার বিকেল থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সাকিবকাণ্ডেই সরগরম হয়ে আছে, যা এখনো অব্যাহত।

সাকিবেরই পরে দুঃখ প্রকাশ ও ক্ষমা চেয়ে দেয়া পোস্টে মাহবুব আলম সোহাগ নামে একজন কমেন্ট করেছেন, ‘আপনার এসব আচরণ দে‌খে আমরা অভ‌্যস্ত। আগামী‌তেও দেখব। আপ‌নি রাগ নিয়ন্ত্রণ কর‌তে পার‌বেন না কখনও। তবুও আপনার জন‌্য শুভ কামনা রইল।’ এর জবাবে সামার চৌধুরীর প্রতিক্রিয়া হচ্ছে, ‘বেয়াদব কনোদিন ভালো হয় না’।

সাইফুল ইসলাম নামে একজন ফেসবুকে লিখেছেন, সাকিবের লাথি বড় এক অশনি সঙ্কেতেরই বোধ হয় ডাক দিল বাংলাদেশের ক্রিকেটে। তবে সাকিব অন্যায় করেছেন, এটা যেমন ঠিক, তার শাস্তি পাওয়াটা যেমন উচিত। একইভাবে এ কথাও বলতে দ্বিধা নেই- নোংরা ক্লাবরাজনীতিতে কলুষিত বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের জন্য এ রকম একটা লাথি বড় দরকার ছিল।

মো: মাহবুবুর রহমান লিখেছেন, এমন আচরণের কারণে চূড়ান্তভাবে শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক। এই দেখে অন্য কোনো খেলোয়াড় যেন এমন ভুল না করে। তাকে বহিষ্কার করা হোক, এমন আইডল দরকার নেই বাংলাদেশের। যার কারণে বিশ্ব দরবারে অপমানিত হতে হয় বাংলাদেশকে। এমন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের দরকার নেই।

আয়শা জাহান তন্বী লিখেছেন, সাকিবকে বহিষ্কার করা এখন সময়ের দাবি।

মোশাররফ নামের একজন লিখেছেন, সাকিব যা করছে ভালো করেছে। একজন খেলোয়াড় কোনো কারণ ছাড়া আম্পায়ারের সাথে এভাবে রাগান্বিত হতে পারে না! হ্যাঁ তার স্ট্যাম্প তুলে ফেলা ঠিক হয়নি, এটা ক্রিকেটের প্রতি অস্মমান।

এভাবে আরো হাজার হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারী সাকিবকাণ্ডের প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

তবে শুক্রবারের ওই কাণ্ডের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এখনো সাকিবের ব্যাপারে শাস্তির কোনো সিদ্ধান্ত জানায়নি।



আরো সংবাদ