১৪ এপ্রিল ২০২১
`

টানা আট হারের পর লঙ্কানদের জয়

টানা আট হারের পর লঙ্কানদের জয় - ছবি : নয়া দিগন্ত

টি টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাজে সময়ের ভেতর দিয়ে যাওয়া শ্রীলঙ্কা স্বস্তির জয় পেয়েছে শনিবার। টানা আট ম্যাচ হারের বৃত্তে ঘুরপাক খাওয়া লঙ্কানদের দেখা মিলেছে অধরা জয়ের। অ্যান্টিগায় দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৪৩ রানে হারিয়েছে অ্যাঞ্জোলো ম্যাথুস শিবির।

আগে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটে ১৬০ রান করে শ্রীলঙ্কা। জবাবে ১৮.৪ ওভারে ১১৭ রানে গুটিয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম ম্যাচ জিতেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। যে ম্যাচে এক ওভারে ছয় ছক্কা হাকিয়েছিলেন কাইরন পোলার্ড। তিন ম্যাচ সিরিজে এখন সমতা ১-১ ব্যবধানে।

আগে ব্যাট করতে নেমে লঙ্কানদের হয়ে সর্বোচ্চ ৪২ বলে ৫৬ রানের ইনিংস খেলেন ওপেনার গুনাথিলাকা। চারটি চারের পাশাপাশি তিনি হাকান দুটি ছক্কা। আরেক ওপেনার নিশাঙ্কা ২৩ বলে করেন ৩৭ রান।

প্রথম দশ ওভারে ১০০ রান তোলা লঙ্কানরা পরের ওভারগুলোতে সেই অনুপাতে রান পাননি। বান্দারা ২১, অধিনায়ক ম্যাথুস ১৩, ডি সিলভা অপরাজিত ১৯ রান করেন।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরু থেকেই যেন খেই হারিয়ে ফেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। লঙ্কান স্পিনদের চাপে কুলিয়ে উঠতে পারেনি গেইল-পোলার্ডরা। সর্বোচ্চ ২৩ রান এসেছে লেজের সারির ব্যাটসম্যান ওবেদ ম্যাককয়ের কল্যানে। ওপেনার লেন্ডল সিমন্স করেন ২১ রান। গেইল ছিলেন টেস্ট মেজাজে, ১৬ বলে ১৬ রান।

আগের ম্যাচে ছক্কার বন্যা বইয়ে দেয়া কাইরন পোলার্ডও খোলস ছেড়ে বের হতে পারেননি। ১৫ বলে এক ছক্কায় তার সম্বল ১৩ রান। বল হাতে লঙ্কানদের হয়ে তিনটি করে উইকেট নেন হাসারাঙ্গা ডি সিলভা ও সান্দাকান। দুশমন্ত চামিরা দুটি, আকিলা ধনাঞ্জয়া ও গুনাথিলাকা নেন একটি করে উইকেট।
ব্যাট বলে অলরাউন্ডিং পারফরম্যান্সের জন্য ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন লঙ্কান স্পিনার হাসারাঙ্গা ডি সিলভা। এই ম্যাচের আগে টি টোয়েন্টিতে শ্রীলঙ্কার সর্বশেষ জয় ছিল ২০১৯ সালের ৯ অক্টোবরে লাহোরে। যেখানে পাকিস্তানকে ১৩ রানে হারিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। মজার বিষয় হলো, সেই ম্যাচেও ম্যাচ সেরার খেতাব পেয়েছিলেন হাসারাঙ্গা ডি সিলভা।

আগামী ৮ মার্চ কুলিজে অনুষ্ঠিত হবে শিরোপা নির্ধারণী তৃতীয় ও শেষ টি টোয়েন্টি।



আরো সংবাদ