২৬ নভেম্বর ২০২০

রোহিতের বাদ পড়ার পিছনে কোহলির ষড়যন্ত্র!


প্রাকটিস নেটে চুটিয়ে ব্যাট করছেন। অস্বাভাবিকতার লেশমাত্র নেই। অথচ চোটের অজুহাতে কিনা রোহিত শর্মাকেই ভারতীয় জাতীয় দল থেকে বাইরে রাখা হল। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের তরফ থেকে বলা হয়েছিল, সামান্য হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট লেগেছে রোহিতের। তবে সেই কারণে দেড় মাস বাকি থাকতেই একটা সফরের তিন ফরম্যাটের দল থেকেই বাইরে রাখা হল রোহিতকে। সফর চলবে দু-মাস। দু-মাসের মধ্যেও সাড়ে তিন মাসের মধ্যেও কি ফিট হয়ে উঠবেন না হিটম্যান! এমনই হাজারও প্রশ্ন করছেন সমর্থকরা।

অস্ট্রেলিয়া সফরের জন্য তিন ফরম্যাটের দল বেছে নিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। তবে সেই নির্বাচনের ৪৮ ঘণ্টা অতিক্রান্ত হলেও রোহিতের বাদ পড়া নিয়ে আলোচনা থামছে না। রোহিতের চোট কতটা গুরুতর, তা খোলসা করে জানানো হয়নি বোর্ডের পক্ষ থেকে। তবে সন্দেহ তৈরি হয়েছে, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের নেটে রীতিমত পরিচিত মেজাজে হিটম্যানকে দেখে। সেখানে তারকাকে দেখা গিয়েছে বল ওড়াতে। দল নির্বাচনের পর রোহিতের সেই ভিডিও ভাইরাল হতে সময় লাগেনি। বোর্ডের পক্ষ থেকে শুধু বলা হয়েছে, রোহিতের ফিটনেসের উন্নতিতে নজর রাখবে বোর্ড।

রোহিতকে বাদ দেয়ার পরেই মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়া পেজে জানিয়ে দিয়েছে, খুব শিগগিরই পরিচিত মেজাজে দেখা যাবে রোহিতকে।

এত সংশয়ের কারণেই ভারতের সাবেক অধিনাযক ও লিজেন্ড সুনীল গাভাস্কার একহাত নিয়েছেন ভারতীয় নির্বাচকদের। রোহিতকে বাদ দেয়া নিয়ে গাভাস্কার নির্বাচকদের সমালোচনা করে বলেছেন,‘নেটে যে এ ভাবে ব্যাট করছে, তার চোট কতটা যে দেড় মাস পরের সফর থেকে বাদ দিতে হল? ওর চোটের বিষয়ে জানার অধিকার সকলের রয়েছে।’

রোহিতের বাদ পড়ার জন্য আবার আলোচনায় উঠে এসেছেন বিরাট কোহলি। গত বছর থেকেই একাধিকবার প্রচারমাধ্যমে শিরোনাম হয়, দুই সুপারস্টারের মনোমালিন্য। অনেকেই রোহিতের বাদ পড়ার পিছনে বিরাটের অদৃশ্য হাত দেখতে পাচ্ছেন।

এই প্রসঙ্গেই বলা হচ্ছে লোকেশ রাহুলের কথা। বিরাট কোহলির ঘনিষ্ঠ তিনি। যেভাবে রোহিতকে বাদ দেয়ার পরেই কেএল রাহুলকে টেস্টে অন্তর্ভুক্তিসহ তিন ফরম্যাটেই ভাইস ক্যাপ্টেন হিসেবে বেছে নেয়া হয়েছে, তাতেও অনেকের সন্দেহ গাঢ় হয়েছে। নির্বাচকরা কেএল রাহুলের পারফরম্যান্সের কথা বললেও ক্রিকেট মহলের ধারণা বিরাট-ঘনিষ্ঠতাই কেএলকে ভাইস ক্যাপ্টেনশীপ অর্জনে সাহায্য করেছে। কেএলকে সহঅধিনায়ক করা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন দীপ দাশগুপ্তও।

প্লে অফে নামার আগে মুম্বাইকে খেলতে হবে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে। নভেম্বরের ৩ তারিখে। সেই ম্যাচে রোহিতের নামার প্রবল সম্ভবনা রয়েছে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের এক কর্তা জানিয়েছেন,‘এক সপ্তাহের মধ্যে রোহিত আইপিএলে খেলে নিজের ফিটনেস প্রমাণ করতে পারলে তো ভালোই। তাহলে নির্বাচকরা নিজেদের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করবে।’

বোর্ডের তরফে এমন কথা জানানো হলেও ষড়যন্ত্র নিয়ে প্রশ্ন রয়েই যাচ্ছে। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস


আরো সংবাদ