০১ ডিসেম্বর ২০২০

শেষ হাসি কে হাসবেন, রিয়াদ না শান্ত?


বৈরি আবহাওয়ার কারণে নির্ধারিত সূচিতে অনুষ্ঠিত হয়নি ফাইনাল। পেছানো হয় দুইদিন। সেই মোতাবেক রোববার প্রেসিডেন্টস কাপের ফাইনালে মুখোমুখি হবে নাজমুল হোসেন শান্ত একাদশ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একাদশ। মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে বেলা দেড়টায় শুরু হবে শিরোপা নির্ধারণী লড়াই। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড নিজেদের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউবে অনলাইন স্ট্রিমিংয়ের মাধ্যমে খেলাগুলো সরাসরি সম্প্রচার করে আসছে। এবার ফাইনাল ম্যাচ দেখা যাবে বিটিভিতেও।

চার ম্যাচে তিন জয়ে তালিকায় শীর্ষে থেকে ফাইনালে উঠে আসে নাজমুল একাদশ। গত বুধবার রাউন্ড রবিন লিগের শেষ ম্যাচে ফাইনালে যেতে জয়ের বিকল্প ছিল না তামিম একাদশের। কিন্তু হেরে গিয়ে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যান তারা। চার ম্যাচে কেবল এক জয়ে ২ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তলানিতে অবস্থান তামিম একাদশের। তামিমদের পরাজয়ে কপাল খোলে মাহমুদউল্লাহ একাদশের। দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থেকে ফাইনালের টিকিট মেলে তাদের।

ফাইনালের আগে দুই অধিনায়ক কথা বলেননি। তবে কথা বলেছেন দুই দলের দুই তারকা পেসার রুবেল হোসেন ও তাসকিন আহমেদ। দুজনই বল হাতে বেশ আলো জ্বালিয়েছেন এই টুর্নামেন্টে। তবে দুজনের লক্ষ্য শেষটা ভালো করা। অর্থাৎ ফাইনালে নিজ দলের হয়ে ভালো পারফরম্যান্স করা। চ্যাম্পিয়ন হতে মুখিয়ে আছেন দুজনই।

নাজমুল একাদশে হয়ে খেলা তাসকিন ফাইনালে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার প্রসঙ্গে ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘ফাইনালে ইনশাআল্লাহ লক্ষ্য থাকবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার। কারণ আমাদের দল চারটার মধ্যে তিনটায় জিতেছে। আর সবাই অনেক এফোর্ট দিচ্ছে এবং অনেক পরিশ্রম করছে। মাঠে আমরা সবাই ফিল্ডিং বলেন, ব্যাটিং বলেন সবাই সবার জায়গা থেকে সেরাটা দেয়ার চেষ্টা করছে। তো চেষ্টা থাকবে ফাইনালে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার।’

পেসারদের সফলতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ আল্লাহর রহমতে এই টুর্নামেন্টে আমাদের সব ফাস্ট বোলারই ভালো করছেন। সবাই বেশ ভালো মিতব্যয়ী এবং নতুন বল, পুরোনো বলে উইকেট নিচ্ছে। নিজেরটা মূল্যায়ন করতে চাইলে আগের থেকে বেটার। আরও উন্নতি করতে হবে কিন্তু আগের থেকে ভালো হচ্ছে। আমি কাজ করছি, আল্লাহ যদি চায় সামনে আরও ভালো কিছু হবে। সবাই দোয়া করবেন।’

অন্যদিকে মাহমুদউল্লাহ একাদশের হয়ে দারুণ বোলিং করেছেন রুবেল হোসেন। তাসকিনের মতো তারও লক্ষ্য চ্যাম্পিয়ন হওয়া। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই কাল জয়ের জন্যই মাঠে আসবো। ফাইনাল ম্যাচে অবশ্যই জয় পেতে চাইবো। পেসাররা যদি ভালো বোলিং করতে পারি এবং আমাদের যে গেম প্ল্যান আছে সেই অনুযায়ী সব কাজে লাগাতে পারি তাহলে ইনশাল্লাহ ভালো হবে। আর পেস বোলাররা ভালো করলে আমাদের ব্যাটিংয়ের জন্য সহজ হবে।’

নিজের বোলিং নিয়ে সন্তুষ্ট রুবেল, ‘আমি নিজের বোলিং নিয়ে সন্তুষ্ট। কারণ আমি যেভাবে বোলিং করতে চাচ্ছি, সেভাবে পারছি। আমার কাছে মনে হয় সবকিছু ঠিক আছে। তাই আলহামদুলিল্লাহ আমি অনেক খুশি।’

ফাইনাল ম্যাচ ফাইনালের মতোই। চাপ থাকবে। তবে রুবেল অত চাপ নিতে নারাজ, ‘এটা তো আসলে ফাইনাল ম্যাচ। সেটা যে লেভেলেরই হোক না কেন ফাইনাল তো ফাইনালই। আমরা ফাইনাল নিয়ে অতটা চিন্তিত না। কারণ এর আগে আমরা অনেক ফাইনাল খেলেছি। আগের ম্যাচগুলোতে যে প্রস্তুতি ছিল ফাইনালও সেভাবেই। লক্ষ্যটা জয়।’


আরো সংবাদ