২৮ অক্টোবর ২০২০

করোনার মধ্যেই শনিবার থেকে শুরু আইপিএল


বিশ্ব জুড়ে চলমান অতিমারি করোনা ভাইরাসের মধ্যেই শনিবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে শুরু হচ্ছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ(আইপিএল) টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ত্রয়োদশ আসর।

গত ২৯ মার্চ ভারতের মাটিতে শুরু হওয়ার কথা ছিলো বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ঘরোয়া এ টি-২০ টুর্নামেন্টের। কিন্তু প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের দাপটে গেল মার্চ থেকেই বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গন স্তব্ধ হয়ে পড়ে।

ফলে বন্ধ হয়ে যায় ফুটবল-ক্রিকেট-টেনিসসহ সারাবিশ্বের ক্রীড়া ইভেন্টগুলো । যথা সময়ে শুরু হতে পারেনি আইপিএল। তবে শনিবার থেকে ভারতের বাইরে, সংযুক্ত আরব আমিরাতে শুরু হচ্ছে অর্থ সমৃদ্ধ এ টুর্নামেন্ট। ভারতের করোনার প্রকোপ বেশি থাকায়, মুরুর দেশে আইপিএল আয়োজনের সিদ্বান্ত নিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।
অনুষ্ঠানহীন-জাকজমকহীনভাবেই এবারের আইপিএলের পথচলা শুরু হচ্ছে। আবু ধাবিতে টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও রানার্স-আপ চেন্নাই সুপার কিংস।

বাংলাদেশ সময় রাত ৮ টায় শুরু হবে টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচটি। ১০ নভেম্বর ফাইনাল দিয়ে পর্দা নামবে করোনার আবহে থাকা আইপিএল। এবারের আসরে মোট ৬০টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

গেল মার্চ থেকে ক্রিকেট বন্ধ হয়ে যাবার পর ৮ জুলাই করোনার মধ্যেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু করে ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। ইংল্যান্ডের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফেরে ক্রিকেট। এর আগে বেশ কয়েকটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের ম্যাচ এবং আইসিসির কয়েকটি টুর্নামেন্ট স্থগিত হয়ে যায়।
মহামারির কারণে টি-২০ বিশ্বকাপ আয়োজনের সাহস পায়নি ক্রিকেটের প্রধান নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অক্টোবর-নভেম্বরের বিশ্বকাপটি এক বছরের জন্য স্থগিত করে দেয় আইসিসি। আর এই সুযোগে আইপিএল আয়োজনের সিদ্বান্ত নেয় বিসিসিআই।

তবে বিশ্বের সেরা টি-২০ আসরটি নিজ চেহারা নিয়ে শুরু করতে পারছে না। আইপিএলের ইতিহাসে এই প্রথম কোনও আসরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হচ্ছে না। মহামারীর কারনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান না করার সিদ্ধান্ত নেয় বিসিসিআই।

অতীতে আইপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শাহরুখ খান, সালমান খান, দীপিকা পাড়ুকোন, ক্যাটরিনা কাইফের মত বড়-বড় তারকারা মঞ্চ মাতিয়েছেন। মহামারীর কারণে এবার সেটি হচ্ছে না। থাকছে না কোনও চিয়ারর্সগার্ল। থাকছে না কোন দর্শকও। করোনা পরিস্থিতির কারণে মাঠের মধ্যে খুবই কম মানুষের উপস্থিতি থাকবে। তাই এবারের আইপিএল হবে একেবারেই ভিন্ন চিত্রের-ভিন্ন মাত্রার। যা হয়তো কখনোই কেউ ভাবেনি।

তবে হয়তো, টসের আগে আইপিএল শুরুর ঘোষণা দিতে পারেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী ও আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল। বর্তমানে আমিরাতে আছেন তারা।

প্রথম ম্যাচ সামনে রেখে নিজেদের প্রস্তুতিটা ভালোভাবেই সেড়েছে মুম্বাই ও চেন্নাই। করোনার কারণে এক মাস আগে মরুর দেশের আসে আইপিএলের দলগুলো। কোয়ারেন্টাইন শেষে দীর্ঘদিন ধরেই মাঠে ঘাম ঝড়িয়েছে তারা। এরমাঝেও করোনা পরীক্ষা দিতে হয়েছে তাদের। তবে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে বড় ধরনের ধাক্কা খায় চেন্নাই। দলের দুই সেরা তারকা সুরেশ রায়না ও হরভজন সিং করোনা আতঙ্কে টুর্নামেন্ট থেকে সড়ে দাঁড়ান। তারপরও দলের অন্যান্যদের দিয়ে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল ভারসাম্য পূর্ণ।

প্রথম ম্যাচকে সামনে রেখে পরিকল্পনার পাশাপাশি, ‘ভার্চুয়াল’ সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ‘ভার্চুয়াল’ সাংবাদিক সেম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মুম্বাই অধিনায়ক রোহিত শর্মা ও কোচ শ্রীলংকার মাহেলা জয়াবর্ধনে।

প্রথম ম্যাচ থেকেই ভালো খেলার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন রোহিত। দীর্ঘদিন পর মাঠে ফিরত পেরে উচ্ছাসও প্রকাশ করেছেন তিনি, ‘দীর্ঘদিন পর মাঠে ফিরতে যাচ্ছি আমরা। এটিই আমাদের কাছে অনেক বড় কিছু। আইপিএলের প্রথম ম্যাচেই নামতে হচ্ছে আমাদের। আমরা ভালো খেলার ব্যাপারে আশাবাদি। চেন্নাই শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। টুর্নামেন্টের শুরুটা ভালোভাবে করতে পারলে আত্মবিশ্বাস উপরের দিকেই থাকবে। শিরোপা ধরে রাখার মিশন আমাদের। আশা করছি, শিরোপা ধরে রাখতে পারবো।’

জাতীয় দলের মত মুম্বাইয়ের হয়েও, ইনিংস শুরু করবেন রোহিত, ‘আমিই ওপেন করব। সাথে দক্ষিণ আফ্রিকার কুইন্টন ডি’কক না-কি অস্ট্রেলিয়ার ক্রিস লিন থাকবে, সেটি আমরা পরে ঠিক করবো।’

কোচ জয়বর্ধনে বললেন, ‘টুর্নামেন্ট নিয়ে আমাদের পরিকল্পনা বিস্তর। শিরোপা জয় করাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য। তবে ম্যাচ-বাই-ম্যাচ আমরা খেলতে চাই।’

ব্যক্তিগত কারণে এবারের আইপিএলে খেলবেন না মুম্বাইয়ের সেরা পেসার শ্রীলংকার লাসিথ মালিঙ্গা। মালিঙ্গাকে দল মিস করবে বলে জানান রোহিত, ‘মালিঙ্গার জায়গা পূরণ করা সম্ভব নয়। তার বিকল্প হয় না। আমাদের দলের অন্যতম সেরা ম্যাচ উইনার ছিল সে। আমরা তার অভাব অনুভব করবো ।’

মুম্বাইয়ের মত এত আয়োজন করে ‘ভার্চুয়াল’ সাংবাদিক সম্মেলনের ব্যবস্থা করেনি চেন্নাই। দলের জন্য পরিকল্পনা সাজাতে ব্যস্ত চেন্নাইয়ের প্রধান কোচ নিউজিল্যান্ডের স্টিফেন ফ্লেমিং ও ব্যাটিং কোচ মাইক হাসি।

ফ্লেমিং বলেন, ‘টুর্নামেন্টে অন্যতম ফেভারিট দল আমরা। প্রতিবারই দল হিসেবে আমরা ভালো খেলে আসছি, ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেছি। এবারও এর ব্যতিক্রম হবে না। আমাদের কোচিং স্টাফে যারা আছি,প্রতিপক্ষকে নিয়ে নিজেদের পরিকল্পনা সাজিয়েছি। আশা করছি এবারও আমরা ভালো কিছু করতে পারবো।’

এদিকে, করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করা যোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানানোর সিদ্বান্ত নিয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। জার্সিতে কোভিড যোদ্ধাদের স্মরণ করবেন তারা। ভিডিও কনফারেন্সে অধিনায়ক বিরাট কোহলি নতুন জার্সির উদ্বোধন করেন। জার্সিগুলোতে লেখা ‘মাই কোভিড হিরোজ’ । গোটা টুর্নামেন্টে, অনুশীলনের সময় মাঠে এই জার্সি পড়বেন কোহলিরা।

মুম্বাই-চেন্নাইয়ের মত এবারের ভিন্ন চিত্রের আইপিএলে সাফল্য পাবার ব্যাপারে আশাবাদি বাকী ছয়টি দলও। ফেভারিটের তকমাটা লেগে আছে সবগুলো দলেই।

টুর্নামেন্টে অংশ গ্রহনকারী আট দল:

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স : রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), কুইন্টন ডি কক, ক্রিস লিন, কাইরোন পোলার্ড, সূর্যকুমার যাদব, আনমোলপ্রীত সিং, সৌরভ তিওয়ারি, ধাওয়াল কুলকার্নি, জসপ্রিত বুমরাহ, দিগ্গিজয় দেশমুখ, হার্দিক পান্ডিয়া, জয়ন্ত যাদব, ক্রুনাল পান্ডিয়া, অনুকুল রায়, ইশান কৃষাণ, রাহুল চাহার, মহসিন খান, প্রিন্স বলবন্ত রাই সিং, আদিতিয়া তারে, নাথান কাল্টার-নাইল, মিচেল ম্যাকক্লেনাঘান, ট্রেন্ট বোল্ট, শেরফানে রাদারফোর্ড ও ফ্যাবিয়ান অ্যালেন।

চেন্নাই সুপার কিংস : মহেন্দ্র সিং ধোনি (অধিনায়ক), এন জগদীশন, ঋতুরাজ গায়কোয়াড, কেএম আসিফ, সাই কিশোর, করণ শর্মা, পীযুষ চাওলা, আম্বাতি রাইডু, রবীন্দ্র জাদেজা, মুরালি বিজয়, কেদার যাদব, মনু কুমার, দীপক চাহার, শার্দুল ঠাকুর, শেন ওয়াটসন, মিচেল স্যান্টনার, জশ হ্যাজেলউড, ইমরান তাহির, ফাফ ডু-প্লেসিস, ডোয়াইন ব্রাভো, লুঙ্গি এনগিদি ও স্যাম কারান।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু : বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), এবি ডিভিলিয়ার্স, গুরকীরত মান, দেবদূত পাড়িক্কল, নভদ্বীপ সাইনি, পবন নেগি, শিবম দুবে, ওয়াশিংটন সুন্দর, পবন দেশপান্ডে, পার্থিব প্যাটেল, শাহবাজ আহমেদ, জশুয়া ফিলিপ, ক্রিস মরিস, অ্যারন ফিঞ্চ, যুজবেন্দ্রা চাহাল, মোহাম্মদ সিরাজ, উমেশ যাদব, কেন রিচার্ডসন, ডেল স্টেইন, ইসুরু উদানা ও মইন আলি।

কলকাতা নাইট রাইডার্স : দীনেশ কার্তিক (অধিনায়ক), আন্দ্রে রাসেল, হ্যারি গার্নে, লুকি ফার্গুসন, সুনীল নারিন, প্যাট কমিন্স, ইয়ন মরগান, কমলেশ নাগারকোটি, কুলদীপ যাদব, নীতীশ রানা, প্রসিদ্ধ কৃষ্ণ, রিঙ্কু সিং, সন্দীপ ওয়ারিয়ার, শিবম মাভি, শুভমান গিল, সিদ্ধেশ লাড, বরুণ চক্রবর্তী, রাহুল ত্রিপাঠী, এম সিদ্ধার্থ, নিখিল নায়েক, টম ব্যান্টন ও ক্রিস গ্রিন।

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব : লোকেশ রাহুল (অধিনায়ক), মায়াঙ্ক আগরওয়াল, করুন নায়ার, সরফরাজ খান, মনদীপ সিং, ইশান পোড়েল, রবি বিষ্ণোই, মোহাম্মদ শামি, মুগান অশ্বিন, জগদীশ সূচিত, হরপ্রীত ব্রার, দর্শন নালকান্দে, কৃষ্ণাপ্পা গৌতম, দিপক হুডা, তেজিন্দর সিং ধিলন, প্রভসীমরণ সিং, ক্রিস গেইল, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, জিমি নিশাম, ক্রিস জর্ডান, মুজিব-উর-রহমান, আর্শদীপ সিং, হারদাস ভিলজোয়েন, নিকোলাস পুরান ও শেলডন কটরেল।

রাজস্থান রয়্যালস : স্টিভ স্মিথ (অধিনায়ক), ডেভিড মিলার, ওশেন থমাস, রবিন উথাপ্পা, অঙ্কিত রাজপুত, মায়াঙ্ক মারকান্ডে, শ্রেয়স গোপাল, বরুণ অ্যারোন, জয়দেব উনাদকাট, মাহিপাল লোমরোর, মনন ভোরা, রিয়ান পরাগ, কার্তিক ত্যাগী, আকাশ সিং, রাহুল তেওয়াতিয়া, শশাঙ্ক সিং, যশশ্বী জয়সওয়াল, অনিরুদ্ধ যোশী, সঞ্জু স্যামসন, অনুজ রাওয়াত, এন্ড্রু টাই, বেন স্টোকস, টম কারান, জস বাটলার ও জোফরা আর্চার।

দিল্লি ক্যাপিটালস : শ্রেয়াস আইয়ার (অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, পৃথ্বী শ, ঋষভ পান্থ, ইশান্ত শর্মা, অক্ষর প্যাটেল, আজিঙ্কা রাহানে, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, অমিত মিশ্র, আভেশ খান, মোহিত সন্দীপ লামিচানে, কাগিসো রাবাদা, শর্মা, ললিত যাদব, হার্শা প্যাটেল, তুষার দেশপান্ডিয়া, কেমো পল, জেসন রয়, মার্কাস স্টোয়িনিস, ক্রিস ওকস, অ্যালেক্স ক্যারি ও শিমরোন হেটমেয়ার।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদ : ডেভিড ওয়ার্নার (অধিনায়ক), কেন উইলিয়ামসন, বিলি স্টানলেক, মিচেল মার্শ, মনীশ পান্ডিয়া, বিরাট সিং, প্রিয়ম গর্গ, আব্দুল সামাদ, ভুবনশ্বর কুমার, খলিল আহমেদ, সন্দীপ শর্মা, সিদ্ধার্থ কৌল, টি নটরাজন, অভিষেক শর্মা, শাহবাজ নাদিম, বিজয় শঙ্কর, সঞ্জয় যাদব, জনি বেয়ারস্টো, ঋদ্ধিমান সাহা, শ্রীবৎস গোস্বামী, ভাবানাকা সন্দীপ, মোহাম্মদ নবী ও রশিদ খান।


আরো সংবাদ