০৭ এপ্রিল ২০২০

অবশেষে বন্ধ হলো উইন্ডোজ ৭ সমর্থন

-

উইন্ডোজ ৭ অপারেটিং সিস্টেমের এ সংস্করণের আর কোনো নিরাপত্তা হালনাগাদ কিংবা অন্যান্য সমর্থন দেবে না মাইক্রোসফট। যদিও উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের সবচেয়ে জনপ্রিয় সংস্করণগুলোর একটি উইন্ডোজ ৭। এখনো বিশ্বব্যাপী ২৬ দশমিক ৬ শতাংশ পার্সোনাল কম্পিউটারে (পিসি) উইন্ডোজ ৭ চলছে। গত ১৪ জানুয়ারি বন্ধ হয়ে গেছে উইন্ডোজ ৭ সমর্থন।
মার্কিন সফটওয়্যার জায়ান্ট মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ১০ উন্মোচনের পর থেকে সতর্ক করে আসছিল, ২০২০ সালের শুরু থেকে উইন্ডোজ ৭ সমর্থন বন্ধ হয়ে যাবে। যদিও ২০১৫ সালের শুরুর দিকেই উইন্ডোজ ৭-এর সব ফিচার হালনাগাদ বন্ধ রয়েছে। বিশ্বব্যাপী উইন্ডোজ পিসি ব্যবহারকারীদের বিভিন্ন সময় উইন্ডোজ ১০ ব্যবহারে উৎসাহিত করেছে প্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু এখনো অসংখ্য মানুষ উইন্ডোজ ১০ হালনাগাদ করেনি।
২০০৯ সালের ২২ জুলাই উইন্ডোজ ৭ উন্মোচন করে মাইক্রোসফট। এটির ব্যবহার সহজ হওয়ায় খুব অল্প সময়ে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। উইন্ডোজের এ সংস্করণের পর আরো দুটি উন্নত সংস্করণ ছাড়া হলেও এখনো বিশ্বের এক-চতুর্থাংশের বেশি পিসিতে উইন্ডোজ ৭ ব্যবহার হচ্ছে। গত ১৪ জানুয়ারির আগ পর্যন্ত ‘বর্ধিত সেবা’ হিসেবে চলছে উইন্ডোজ ৭ সংস্করণটি। অর্থাৎ মূল ধারার সমর্থন বন্ধ হয়ে গেলেও কেবল নিরাপত্তা ইস্যু এবং কিছু বাগ মোকাবেলা করার জন্য সীমিত সমর্থন বজায় রাখা হয়েছে। তবে এখন আর কোনো ধরনের সমর্থন মিলবে না।
উইন্ডোজ ৭ সমর্থন বন্ধ হওয়ার অর্থ এমন নয় যে, অপারেটিং সিস্টেমটি দিয়ে আর কোনো পিসি চালানো যাবে না। মাইক্রোসফট শুধু উইন্ডোজ ৭ সমর্থন বন্ধ করছে। ফলে নতুন কোনো হালনাগাদ পাওয়া যাবে না। ব্যবহারকারীরা ঠিকই উইন্ডোজ ৭ দিয়ে তাদের কম্পিউটার চালিয়ে নিতে পারবেন। তবে সমস্যা হবে নিরাপত্তা ইস্যুকে কেন্দ্র করে। উইন্ডোজের জনপ্রিয় সংস্করণটির সমর্থন বন্ধ হওয়ার পর ম্যালওয়্যার আক্রমণের আশঙ্কা দিন দিন বাড়বে। ফলে সাইবার আক্রমণ প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে না। ভাইরাস ও অন্যান্য ত্রুটি প্রতিরোধের ব্যবস্থা না থাকায় স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্র্যাশ করবে এবং ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে যাবে। কাজেই সমর্থন বন্ধ হওয়ার আগেই উইন্ডোজ ১০ বা সমর্থন রয়েছে, এমন যেকোনো অপারেটিং সিস্টেমে পিসি হালনাগাদ করিয়ে নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।
প্রযুক্তি বিশ্লেষকদের ভাষ্যে, উইন্ডোজ ৭ থেকে ১০-এ হালনাগাদ করলে সবচেয়ে বেশি লাভবান হবেন ব্যবহারকারী। এর প্রধান কারণ উভয় অপারেটিং সিস্টেমই একই প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নকৃত। যে কারণে মূল কাঠামোয় সাদৃশ্য রয়েছে। এর ফলে ব্যবহারকারীর জন্য উইন্ডোজ ১০ চালানো তুলনামূলক সহজ হবে। উইন্ডোজ ১০-এর ইন্টারফেস ও লেআউট উইন্ডোজ ৭-এর মতোই। কেবল প্রোগ্রামগুলো হালনাগাদ করা হয়েছে। স আহমেদ ইফতেখার

 

 


আরো সংবাদ

দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর (২৭৯১৩)করোনা ছড়ানোয় চীনকে যে ভয়ঙ্কর শাস্তি দেয়ার দাবি উঠল জাতিসংঘে (১৭৬৭৩)গাদ্দাফিকে উৎখাতকারী জিবরিলের করোনায় মৃত্যু (১৫৭৯০)রমজান মাসে অফিসের সময়সূচি নির্ধারণ (১৪৩১৪)উকুন মারার ওষুধে ৪৮ ঘণ্টায় খতম করোনা (১৩৯১৮)করোনায় মৃতদের জানাজা-দাফনে প্রস্তুত এক ঝাঁক আলেম (১২৯১২)এবার করোনায় আক্রান্ত বাঘ (১০৬৬১)৩ ঘণ্টার রাস্তা পাড়ি দিয়েছেন ২ দিন, খরচ হয়েছে ৪ হাজার টাকা! (১০৫১৮)'মেয়েকে কোলেও নিতে পারছি না!' দূর থেকে ভেজা চোখে তাকিয়ে পুলিশ অফিসার (১০০৭২)করোনার চিকিৎসায় তুরস্কের অভূতপূর্ব পদক্ষেপ, পাল্টে যাচ্ছে চিকিৎসা পদ্ধতি (৯৭০৬)