০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ১৫ রজব ১৪৪৪
ads
`

বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে


বঙ্গোপসাগরে আরেকটি ঘূর্ণিঝড়ের উৎপত্তি হয়েছে। এর নাম দেয়া হয়েছে সাইক্লোন ‘মনদাউস'। দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে ও তৎসংলগ্ন এলাকায় সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেয়।

বৃহস্পতিবার ভারতের আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, 'মান্ডস' ৯ ডিসেম্বর মধ্য রাতে প্রতিবেশী পণ্ডিচেরি, অন্ধ্রপ্রদেশের এবং শ্রীহরিকোটার মধ্যবর্তী উপকূল অতিক্রম করতে পারে। তামিলনাড়ুর বেশ কয়েকটি অংশে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে।

বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার, যা বৃদ্ধি পেয়ে ঘণ্টায় ৮৮ কিলোমিটারে উত্তীর্ণ হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়ের আশেপাশের এলাকার সমুদ্র বেশ অশান্ত থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ওয়াইএস জগনমোহন রেড্ডি বৃহস্পতিবার বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড়ের পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন জেলার কালেক্টরদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি ঘূর্ণিঝড়ের বিষয়ে-সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেছেন।

উত্তর তামিলনাড়ু, পণ্ডিচেরি এবং দক্ষিণ অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে একটি ঘূর্ণিঝড় সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের এক বিশেষ বুলেটিনে বলা হয়, কিছুটা দক্ষিণ ও উত্তর-পশ্চিম দিকে সরে সেখানেই অবস্থান করছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতর।

ঘূর্ণিঝড় বৃহস্পতিবার সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৬৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার থেকে এক হাজার ৬৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা থেকে এক হাজার ৫৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৫৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে।

চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে ২ নম্বর দূরবর্তী সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সমুদ্রে অবস্থানরত নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

সূত্র : ডয়চে ভেলে


আরো সংবাদ


premium cement