৩০ মে ২০২০

শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে

দেশের বিভিন্ন এলাকায় বয়ে যাওয়া শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে বলে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে।

আবহাওয়াবিদ মো. হাফিজুর রহমান আজ জানান, আগামী ২দিনের মধ্যে শৈত্য প্রবাহ অনেকটা কেটে যাবে। তিনি জানান, রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগসহ টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, বরিশাল ও রাঙ্গামটি অঞ্চলসমূহের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারী ধরনের শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা আগামী দু’একদিন অব্যাহত থাকতে পারে।

হাফিজুর রহমান জানান, চলতি মাসের শেষ ৩ দিন দেশের বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। সেই সময় তাপমাত্রা অনেকটা বাড়বে। পরবর্তী ৭২ ঘন্টার শেষের দিকে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

তিনি জানান, চলতি মাসের ২৮, ২৯ ও ৩০ তারিখ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এরপর তাপমাত্রা কিছুটা হ্রাস পেতে পারে।

এরপর চলতি মাসের দেশে আর শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই এবং মাসের শেষভাগে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে। তবে বৃষ্টির পর তাপমাত্রা একটু হ্রাস পেতে পারে।

আজ সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে।

এছাড়া শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের কোথাও কোথাও মাঝারী থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং দেশের অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারী ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে।

আজ দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে তেঁতুলিয়ায় ৬ দশমিক ৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস, শ্রীমঙ্গলে ৬ দশমিক ৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস, ডিমলায় ৭ দশমিক ৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস, চুয়াডাঙ্গায় ৬ দশমিক ৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং টেকনাফে সর্বোচ্চ ২৯ দশমিক ২ ডিগ্রী সেলসিয়াস।

আজ সকাল ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৯০ শতাংশ। ঢাকায় আজ সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৫ টা ৩৯ মিনিটে এবং আগামীকাল ঢাকায় সূর্যোদয় ভোর ৬টা ৪২ মিনিটে।

পূর্বাভাসে আরও বলা হয়, উপমহাদেশীয় উচ্চ চাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গ এবং তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।


আরো সংবাদ