০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ১৫ রজব ১৪৪৪
ads
`
খুলনা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন

সাইফুল ইসলাম সভাপতি তারিক মাহমুদ সম্পাদক নির্বাচিত

-

খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের প্রার্থীরা ১৪টি পদের মধ্যে সব ক’টি পদেই জয় লাভ করেছেন। গত রোববার রাতে ভোট গণনা শেষে এ ফলাফল ঘোষণা করা হয়। তবে নির্বাচনের আগের দিন বিএনপি সমর্থিত সর্বদলীয় আইনজীবী ঐক্য পরিষদ নির্বাচন কমিশন ও প্রতিপক্ষ প্যানেলের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গসহ বিভিন্ন অভিযোগে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয়।
খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে অ্যাডভোকেট মো: সাইফুল ইসলাম এক হাজার ৬০ ভোট পেয়ে পেয়ে সভাপতি ও অ্যাডভোকেট তারিক মাহমুদ তারা ৯৭৮ ভোট পেয়ে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন। সহসভাপতি পদে এ কে এম মিজানুর রহমান ও শিরিন আক্তার পপি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে তমাল কান্তি ঘোষ, লাইব্রেরি সম্পাদক পদে কাজী সাইফুল ইমরান, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে মো: আসাদুজ্জামান গাজী মিল্টন নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া সদস্য পদে ওমর ফারুক রনি, সরদার আশরাফুর হমান দিপু, এস এম আবদুস সাত্তার, প্রজেশ রায়, মো: মনিনুর ইসলাম মনির, সাবিরা সুলতানা হ্যাপি ও খাদিজা আক্তার টুলু নির্বাচিত হয়েছেন।


বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের নির্বাচন বর্জন
অপর দিকে আইনজীবী সমিতির এবারের নির্বাচনকে লজ্জাজনক অভিহিত করে তা কলঙ্কের ইতিহাস রচনা করেছে বলে উল্লেখ করেছে বিএনপি সমর্থিত সর্বদলীয় আইনজীবী ঐক্য পরিষদ। এক বিবৃতিতে খুলনা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম, সর্বদলীয় আইনজীবী ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ বলেন, ভোট বর্জন, ভোটকেন্দ্রে না গেলেও তথাকথিত আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশনের দ্বারা পরিচালিত নির্বাচনে অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করে সর্বোচ্চ ভোট প্রয়োগের ঘটনা গভীর উদ্বেগজনক। তারা বলেন এক তরফা ভোটের ফল কারচুপি করে সর্বোচ্চ এক হাজার ১৮৪ ভোট প্রয়োগ দেখিয়ে তথাকথিত নির্বাচন কমিশন বেহায়াপনার রেকর্ড গড়েছেন।
বিবৃতিদাতারা হলেন- সর্বদলীয় আইনজীবী ঐক্য পরিষদের সিনিয়র কো-কনভেনর গাজী আবদুল বারী, কো-কনভেনর লতিফুর রহমান লাবু, আক্তার জাহান রুকু ও শহিদুল ইসলাম, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম সভাপতি মাসুদ হোসেন রনি, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি নুরুল হাসান রুবা, বজলার রহমান, এস আর ফারুক, আবদুল মালেক, আবদুল্লাহ হোসেন বাচ্চু, মো: ইউনুস, শেখ আবদুল আজিজ, আইনজীবী সমিতির সাবেক সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাসুম রশিদ ও মশিউর রহমান নান্নু, তৌহিদুর রহমান চৌধুরী তুষার, কনিজ ফাতেমা আমিন, তছলিমা খাতুন ছন্দা, জাতীয়তাবাদী হিন্দু আইনজীবী ঐক্য পরিষদের সভাপতি সত্যগোপাল ঘোষ ও জয়দেব সরকার।


এর আগে শনিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে সর্বদলীয় আইনজীবী ঐক্য পরিষদের সিনিয়র কো-কনভেনর অ্যাডভোকেট গাজী আবদুর বারী উল্লেখ করেন খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি ও আওয়ামী লীগের খুলনা সদর থানার সভাপতি মো: সাইফুল ইসলাম বিগত তিন বছর ধরে নির্বাচন কক্ষে অবস্থান করে ভোটারদের তাকে দেখিয়ে ভোট দিতে বাধ্য করেন। অনেকের মোবাইলে ব্যালেটের ছবি তুলে তাকে ও তার পরিষদকে ভোট দেয়া হয়েছে কি না দেখাতে হয়। তিনি বলেন, সাইফুল ইসলাম ও তারেক মাহমুদ তারা পরিষদের নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের একাধিক অভিযোগ উত্থাপন করা সত্ত্বেও নির্বাচন কমিশন তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। সভাপতি প্রার্থী মো: সাইফুল ইসলামের চেম্বার থেকে গত এক সপ্তাহ যাবৎ ভোটারদের মধ্যে প্রকাশ্যে সুটপিস, শাড়ি ও নগদ টাকা বিতরণ করা হয়েছে। কিন্তু নির্বাচন কমিশন তা দেখেও না দেখার ভান করছেন।


আরো সংবাদ


premium cement