০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

বদরখালী সমিতির নির্বাচন আজ

চকরিয়া উপজেলায় অবস্থিত বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতি ভবন -

এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তর সমিতি হিসেবে পরিচিত চকরিয়া উপজেলার ‘বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির’ বহু প্রতীক্ষিত নির্বাচনকে ঘিরে বদরখালী উপকূলীয় জনপদ প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে। আজ শনিবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম এই সমবায় সমিতির ত্রিবার্ষিক নির্বাচন।
নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী সমিতির ১২টি পদের বিপরীতে মোট ৩৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। পরে প্রার্থীরা প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে নির্বাচনী মাঠে নেমে পড়েন। এ নির্বাচনে সভাপতি পদে চারজন, সহসভাপতি পাঁচজন, সম্পাদক পদে পাঁচজন ও ৯টি ব্লকে পরিচালক পদে ২৪ জন প্রার্থী ভোটযুদ্ধে নেমেছেন।
নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং কর্মকর্তার সূত্রে জানা যায়, এ বারের নির্বাচনে সভাপতি পদে লড়ছেন চারজন। তারা হলেন, সাবেক তিনবারের সম্পাদক দেলোয়ার হোছাইন (গোলাপ ফুল), সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল হান্নানের বড় ছেলে নুরে হাবিব তছলিম (ছাতা), বর্তমান কমিটির সভাপতি নুরুল আলম সিকদারের ছেলে ছরওয়ার আলম সিকদার (চেয়ার) ও মনজুর আলম।
এ দিকে সহসভাপতি পদে পাঁচজন প্রার্থী ভোটযুদ্ধে রয়েছেন। সমিতির আলোচিত সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন পাঁচজন। তারা হলেন- সাবেক সম্পাদক মোহাম্মদ আলী চৌধুরী (দেওয়াল ঘড়ি), সাবেক সম্পাদক মরহুম ইকবাল বদরীর ভাই এ এম এস্তেফাজুর রহমান (আনারস), নতুন মুখ মইন উদ্দিন (চাকা)। অন্য দুইজন নজরুল ইসলাম ও আরিফ জুনায়েত রাসেল। এখানে মূলত ভোটযুদ্ধ হবে প্রথম তিনজনের মধ্যে। সমিতির ৯টি ব্লক থেকে নির্বাচিত হবেন ৯ জন পরিচালক। এ ৯টি পদের বিপরীতে ভোটযুদ্ধে আছেন ২৪ জন প্রার্থী।
বদরখালী নির্বাচনী এলাকা পরিদর্শনকালে দেখা যায়, উপকূলীয় এ জনপদে এখন নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা বেশ জমে উঠেছে। এ নির্বাচনকে ঘিরে এলাকায় উৎসব মুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে, যা দেখলে মনে হয় কোনো জাতীয় নির্বাচনের উৎসব চলছে।
জানা যায়, উপনিবেশ সমবায় আইন অনুযায়ী তিন বছর পর পর অনুষ্ঠিত হয় এ সমিতির নির্বাচন। বর্তমান ব্যবস্থাপনা কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ায় গত দুই মাস আগে নির্বাচনের নতুন তফসিল ঘোষণা করা হয়। চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেপি দেওয়ান এবারকার নির্বাচনের প্রধান সমন্বয়ক। তার তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে দুইজন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা যথাক্রমে চকরিয়া উপজেলা সমবায় অফিসার জাহাঙ্গীর আলম ও কক্সবাজার সদর উপজেলা সমবায় অফিসার মো: রমিজ আহমদ দায়িত্ব পালন করছেন।
এশিয়ার বৃহত্তম জনপদ কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার উপকূলীয় বদরখালীর ৫০ হাজার জনগোষ্ঠীর সমন্বয়ে বদরখালী সমবায় ও কৃষি উপনিবেশ সমিতি। এ সমিতির ভোটার রয়েছে ১৫০০ জন। তাদের প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে আগামী তিন বছরের জন্য নতুন ব্যবস্থাপনা কমিটি নির্বাচিত হবে। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে বদরখালী সমিতির ভোটার ও সাধারণ জনগণের মধ্যে বেশ উৎসহ দেখা দিয়েছে। প্রার্থীরা প্রতিদিন সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ভোটারদের কাছে গিয়ে প্রচার-প্রচারণা ও কুশল বিনিময়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। নির্বাচনের প্রচারণার শেষ মুহূর্তে এসে বিত্তশালী প্রার্থীরা গতবারের মতো টাকা দিয়ে ভোট কিনবে। এ জন্য ইতোমধ্যে অনেকে প্রস্তুতিও নিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন বদরখালী সমিতির অনেক প্রবীণ ভোটাররা।


আরো সংবাদ


premium cement