১৩ আগস্ট ২০২২
`

জুনে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা ছাড়িয়েছে ৪২ শতাংশ

এক মাসে সড়কে প্রাণ গেল ৫২৪ জনের
-

গত জুন মাসে সড়কে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার হার ৪২ দশমিক ১৮ শতাংশ। মোট দুর্ঘটনা ঘটেছে ৪৭৬টি। এতে নিহত হয়েছেন ৫২৪ জন এবং আহত হয়েছেন ৮২১ জন। নিহতদের মধ্যে নারী ৬৮ জন ও শিশু ৭৩ রয়েছে। ১৯৭টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ২০৪ জন। দুর্ঘটনায় ১০৭ জন পথচারী নিহত হয়েছেন। যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছেন ৮৬ জন। এ সময়ে আটটি নৌদুর্ঘটনায় ৯ জন নিহত, ১৬ জন আহত হয়েছেন এবং তিনজন নিখোঁজ রয়েছেন। ১৮টি রেলপথ দুর্ঘটনায় ১৬ জন নিহত এবং চারজন আহত হয়েছে। গতকাল রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়েছে। ৯টি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা, সাতটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও ইলেকট্রনিক গণমাধ্যমের তথ্যের ভিত্তিতে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দুর্ঘটনাগুলোর মধ্যে ৫ দশমিক ৭৮ শতাংশ ঘটেছে ভোরে। সকালে ঘটেছে ৩৩ দশমিক ৮৩ শতাংশ, দুপুরে ২৪ দশমিক ৪১ শতাংশ, বিকেলে ১৫ দশমিক ৬৩ শতাংশ, সন্ধ্যায় ৫ দশমিক ৩৫ শতাংশ ও রাতে ১৪ দশমিক ৯৮ শতাংশ ঘটেছে।
দুর্ঘটনার বিভাগভিত্তিক পরিসংখ্যান বলছে, ঢাকা বিভাগে দুর্ঘটনা ২৫ দশমিক ০৫ শতাংশ ও প্রাণহানি ২৬ দশমিক ৫২ শতাংশ, রাজশাহী বিভাগে দুর্ঘটনা ১৫ দশমিক ৪১ শতাংশ ও প্রাণহানি ১৪ দশমিক ৮৮ শতাংশ, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ ও প্রাণহানি ১৬ দশমিক ২২ শতাংশ, খুলনা বিভাগে ১৪ দশমিক ৩৪ শতাংশ ও প্রাণহানি ১৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ, বরিশাল বিভাগে ৯ শতাংশ ও প্রাণহানি ৮ দশমিক ২০ শতাংশ, সিলেট বিভাগে ২ দশমিক ৭৮ শতাংশ ও প্রাণহানি ২ দশমিক ৬৭ শতাংশ, রংপুর বিভাগে ১০ দশমিক ৪৯ শতাংশ ও প্রাণহানি ১১ দশমিক ৪৫ শতাংশ, ময়মনসিংহ বিভাগে ৬ দশমিক ৪২ শতাংশ ও প্রাণহানি ৬ দশমিক ১০ শতাংশ। এ ছাড়া রাজধানীতে ১৪টি দুর্ঘটনায় ১৪ জন নিহত ও ছয়জন আহত হয়েছেন।
ঢাকা বিভাগে সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি ঘটেছে ১১৭টি। এসব দুর্ঘটনায় ১৩৯ জন নিহত হয়েছেন। সিলেট বিভাগে সবচেয়ে কম ১৩টি দুর্ঘটনায় ১৪ জন নিহত হয়েছেন। একক জেলা হিসেবে ঢাকা জেলায় সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি ঘটেছে।

 


আরো সংবাদ


premium cement