০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ৬ জিলহজ ১৪৪৩
`

ফেনসিডিল সরবরাহ করতেন ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার

-

বগুড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেন মো: ইমরুল কাওছার (শাওন)। ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার সময় ফেনসিডিলে আসক্ত হয়ে পড়েন। পড়ালেখা শেষে ফেনসিডিলের খরচ জোগাতে ব্যবসাতেই নেমে পড়েন। দিনাজপুরের বিভিন্ন সীমান্ত এলাকা থেকে ভারতের মাদক ব্যবসায়ীদের ফেনসিডিল সংগ্রহ করে ঢাকায় সরবারহ করে আসছিলেন শাওন। গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর গাবতলী এলাকা থেকে সহযোগী মো: সুমন হোসেনসহ শাওনকে গ্রেফতারের পর এ তথ্য জানিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। গ্রেফতারের সময় তার কাছ থেকে ফেনসিডিল সরবরাহের কাজে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেটকার ও ৪৭০ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়েছে।
ডিবির পল্লবী জোনাল টিমের টিমলিডার অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (এডিসি) মো: মোস্তফা কামাল বলেন, সুমন প্রাইভেটকার চালক। তারা দীর্ঘদিন ধরে সীমান্ত এলাকা থেকে ফেনসিডিল সংগ্রহ করে রাজধানীর বিভিন্ন মাদক ব্যবসায়ীর কাছে সরবরাহ করত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শাওন ডিবিকে জানিয়েছে, সে বগুড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র থাকাকালীন ফেনসিডিলে আসক্ত হয়ে পড়ে। পরে ফেনসিডিলের খরচ জোগাতে নিজেই ব্যবসায়ী বনে যান। দিনাজপুরের বিভিন্ন সীমান্ত এলাকা থেকে প্রতি বোতল ১২০০ টাকায় কিনে এনে রাজধানীতে ১৫০০ থেকে ২২০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করত তারা। করোনার সময় প্রতি বোতল ৪৫০০ টাকাও বিক্রি করেছে বলেও জানিয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে দারুসসালাম থানায় মামলা করা হয়েছে বলেও জানান এডিসি।


আরো সংবাদ


premium cement
ভবিষ্যতে বাংলাদেশের প্রধান রফতানি উপার্জনকারী হবে ডিজিটাল ডিভাইস : প্রধানমন্ত্রী সিলেটে পশুর হাটে নেই ক্রেতা ওপেকের সেক্রেটারি জেনারেলের নাইজেরিয়ায় ইন্তেকাল অবশেষে স্কুল ফুটবলের শিরোপা ছমিরউদ্দিন স্কুলের নাগরপুরে বন্যার্তদের মাঝে জামায়াতের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ বিজিবি-র‌্যাবের সোর্সকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা মাদক কারবারিদের ইন্দোনেশিয়ায় ইশারা ভাষায় হাফেজ হচ্ছে তারা পদ্মা পাড়ি দিতে এখনো ভোগান্তি, মোটরসাইকেল পার করতে বিড়ম্বনা গরিবের আমানত কোরবানির পশুর চামড়া নষ্ট করা যাবে না : হেফাজত পদ্মা সেতুর সুফল : যানবাহনের চাপ নেই ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে আড়াইহাজারে হাত-পা বাঁধা নারীর লাশ উদ্ধার

সকল