১১ আগস্ট ২০২২
`
জামায়াতের আলোচনা সভায় বক্তারা

স্বৈরাচারের হাত থেকে জনগণকে মুক্ত করতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে

-

স্বৈরাচার পতন ও গণতন্ত্র মুক্তি দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী উত্তর ও দক্ষিণ। এসব আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, আওয়ামী স্বৈরাচারের হাত থেকে জনগণকে মুক্ত করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ : জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমির নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেছেন, স্বৈরশাসক এরশাদ ৮২ সালে পেশাগত বিশ্বস্ততা ও শপথ ভেঙে বন্দুকের নলের মুখে নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি বিচারপতি আব্দুস সাত্তারকে ক্ষমতাচ্যুত করে সামরিক শাসন জারির মাধ্যমে সাংবিধানিক রাজনীতি স্তব্ধ ও গণতন্ত্র নস্যাৎ করেছিলেন। এরপরে এ স্বৈরশাসক একে একে সব গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে রাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক ধারাকে বাধাগ্রস্ত করেছিল। ৯ বছরের গণ-আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় ৯০-এর ৬ ডিসেম্বর ছাত্র-জনতার মিলিত শক্তিতে স্বৈরাচারকে পরাজিত করে মুক্ত হয়েছিল দেশের গণতন্ত্র। তিনি আরো বলেন, বর্তমান আওয়ামী স্বৈরশাসনে বাংলাদেশ আবারো গভীর সঙ্কটের আবর্তে নিমজ্জিত। এখানে আইনের শাসন ভূলণ্ঠিত, গণতন্ত্র নির্বাসিত ও মানবাধিকার বিপন্ন। চার দিকে অসহায় ও বিপন্ন মানুষের হাহাকার। দেশের গণতন্ত্র ও মানুষকে মুক্ত করতে ইসলামী আদর্শের ভিত্তিতে প্রয়োজন এ স্বৈরাচারের পতন নিশ্চিত করা। সেই লক্ষ্যে আওয়ামী স্বৈরাচারের হাত থেকে জনগণকে মুক্ত করতে তিনি সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভূমিকা রাখতে উদাত্ত আহŸান জানান।
গতকাল রাজধানীর একটি মিলনায়তনে স্বৈরাচার পতন দিবস উপলক্ষে জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের সঞ্চালনায় সভায় আরো বক্তৃতা করেন, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নায়েবে আমির মনজুরুল ইসলাম ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট ড. মো: হেলাল উদ্দিন, কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি মুহা: আবদুল জব্বার, কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য অধ্যাপক মোকাররম হোসাইন খান, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য শ্রমিক নেতা আব্দুস সালাম।
ঢাকা মহানগরী উত্তর : জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের নায়েবে আমির আব্দুর রহমান মুসা বলেছেন, স্বৈরাচারীরা সবসময় অবৈধ, অসাংবিধানিক ও অগণতান্ত্রিক পন্থায় ক্ষমতায় আসে। সাময়িক সুবিধা লাভ করলেও তাদের ক্ষমতা কখনোই স্থায়ী হয় না। ১৯৯০ সালে গণ-আন্দোলনের মাধ্যমে জেনারেল এরশাদের লজ্জাজনক পতন তারই জ¦লন্ত প্রমাণ। তিনি আরো বলেন, শহীদদের স্বপ্নের গণতন্ত্র আজো প্রাতিষ্ঠানিক রূপ লাভ করেনি। তিনি শহীদদের স্বপ্নের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় আবার সবাইকে রাজপথে নামার আহŸান জানান। গতকাল রাজধানীর একটি মিলনায়তনে জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী উত্তর আয়োজিত স্বৈরাচার পতন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সেক্রেটারি ড. মুহা: রেজাউল করিমের পরিচালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সহকারী সেক্রেটারি লস্কর মো: তসলিম ও ঢাকা মহানগরীর কর্মপরিষদ সদস্য জামাল উদ্দীন প্রমুখ।
রাজশাহী ব্যুরো জানায়, স্বৈরাচার পতন ও গণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী রাজশাহী মহানগরীর উদ্যোগে এক ভার্চুয়ালি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকেলে এ সভার আয়োজন করা হয়।
এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও রাজশাহী মহানগরী আমির মাওলানা ড. কেরামত আলী। জামায়াতে ইসলামীর রাজশাহী মহানগরী নায়েবে আমির অ্যাডভোকেট আবু মোহাম্মদ সেলিমের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি ইমাজ উদ্দিন মণ্ডলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় রাজশাহী মহানগরীর সহকারী সেক্রেটারি অধ্যক্ষ মাহবুবুল আহসান বুলবুল, অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক মাজেদুর রহমান, সমাজ কল্যাণ সেক্রেটারি অধ্যাপক মাইনুল ইসলাম, মহানগরীর কর্মপরিষদ সদস্য ও বোয়ালিয়া উত্তর থানা আমির অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম, প্রচার ও মিডিয়া সম্পাদক অধ্যাপক সারওয়ার জাহান, যুব সেক্রেটারি জসিম উদ্দিন সরকার, কাটাখালী থানা আমির অধ্যাপক জালাল উদ্দীন, মতিহার থানা আমির মাওলানা আব্দুল ওয়াহাব প্রমুখ নেতা বক্তব্য দেন। এতে মাওলানা কেরামত আলী বলেন, এরশাদ সরকারের বিরুদ্ধে ১৯৯০ সালে এ দেশের আপামর জনগণ যেভাবে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল তার চেয়ে আরো দৃঢ় ঐক্য গড়ে তুলে এই জালিম সরকারের পতন নিশ্চিত করতে হবে। তিনি অবৈধ সরকারের মিথ্যা মামলায় গ্রেফতরকৃত জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ারসহ জাতীয় নেতৃবৃন্দের মুক্তির জোর দাবি জানান।


আরো সংবাদ


premium cement